বন্ধ হচ্ছে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭ আপডেটঃ ৩:৫৮ অপরাহ্ন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) আইন-কানুনে সংস্কার আসার প্রেক্ষাপটে এবার বদলে যাচ্ছে ওয়ানডে সিরিজের নিয়ম। আগামীতে আর হয়ত দেখা যাবে না পাঁচ ম্যাচের দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজ। এ ধরনের সিরিজ সর্বোচ্চ তিন ম্যাচের হবে। এছাড়াও খুব শ্রীঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে ১৩ দলের ওয়ানডে গ্লোবাল লিগ।

এমনই ইঙ্গিত দিলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড। সেক্ষেত্রে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার চলতি ওয়ানডে সিরিজই সম্ভবত শেষ পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ হিসেবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জেমস সাদারল্যান্ড বলেন, ‘আমার মনে হয় না, ভবিষ্যতে কোনো দেশ তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজের বেশি কখনো খেলবে বলে। সিরিজে কিছু টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জুড়ে যেতে পারে বড়জোর।

আরও খবর : নেইমারের জার্সি বিক্রি বন্ধ!

বিশেষ করে আইসিসি এখন টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ এবং ওয়ান ডে ক্রিকেট লিগ শুরুর কথা ভাবছে। সেক্ষেত্রে ১৩ দেশের একদিনের ম্যাচের ক্রিকেট লিগ শুরু হয়ে গেলে কিন্তু আর পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলার জন্য কারও কাছেই বিশেষ সময় নেই।’

জেমস সান্ডারল্যান্ড আরও বলেছেন, ‘দেখুন, ভারতে যাওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশে টেস্ট সিরিজ খেলে এলো। কিন্তু এই সিরিজ নিয়ে আগ্রহ থাকলো শুধুমাত্র দুই দেশের। কিন্তু টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হয়ে গেলে, কিন্তু পয়েন্ট সিস্টেম থাকবে।

সেক্ষেত্রে, দুই দেশের সিরিজের ফলাফলের দিকে তৃতীয় দেশও তাকিয়ে থাকবে। আর ১৩ দেশের একদিনের ম্যাচের লিগ শুরু হলে, প্রতি দেশ ছ’টি ম্যাচ খেলবে নিজের দেশের মাটিতে। আবার ছ’টি ম্যাচ খেলতে যাবে বিদেশের মাটিতে। তখন কিন্তু, আর পাঁচ ম্যাচের একদিনের সিরিজ খেলার জন্য কোনো সময় থাকবে না। কারণ, টি-টোয়েন্টি ম্যাচও যে রয়েছে।’

কিছু দিন অাগে জানা গিয়েছিল, ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ চালু হবে। এমনিতেই এটা প্রচুর সময়সাপক্ষ। তার মাঝেই নতুন করে ওয়ানডে লিগ করা চিন্তাভাবনা করছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি।

প্রস্তাবিত এই ওয়ানডে লিগে ছয়টি হোম এবং ছয়টি অ্যাওয়ে ম্যাচ হতে পারে। এই লিগের ফলে র‌্যাংকিংয়ের নীচের দিকের দলগুলো ম্যাচ খেলার পর্যাপ্ত সুযোগ পাবার পাশাপাশি বড় দলগুলোর বিপক্ষে খেলারও অভিজ্ঞতা হবে।

এসএইচ-১৩/২১/০৯ (স্পোর্টস ডেস্ক)