সৌদি গ্রিনকার্ডে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ পাবেন প্রবাসীরা

প্রকাশিতঃ মে ১৩, ২০১৮ আপডেটঃ ৬:১৯ অপরাহ্ন

দেশের রাজস্ব আয় বৃদ্ধির পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আমেরিকার আদলে একটি গ্রিনকার্ড পদ্ধতি প্রবর্তনের চিন্তা করছে সৌদি সরকার। যে পদ্ধতির মাধ্যমে সৌদিতে অবস্থানরত প্রবাসীরা একটি “স্থায়ী আবাস” হিসেবে দেশটিতে থেকে যেতে পারবেন।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এই গ্রিনকার্ড পদ্ধতি চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন সৌদি প্রিন্স মোহাম্মদ বিল সালমান।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল আল-আরাবিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে এ পরিকল্পনার কথা জানান তিনি। সৌদি যুবরাজের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন দেশটিতে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা।

আরও খবর : মালয়েশিয়ায় জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশি আবু হুসেন বিজয়ী

এই প্রকল্প কার্যকর হলে প্রবাসী কর্মীদের দুঃসহ কফিল বা কোম্পানি পরিবর্তনের যে ঝক্কি-ঝামেলা আছে তা থেকে মুক্তি পাবেন। পাশাপাশি বৈধ এবং অবৈধ শ্রমিককে ঘিরে কফিলের যে অতিরিক্ত টাকা উপার্জনের মানসিকতা তা নিরসন হবে।

সৌদি যুবরাজের এমন ঘোষণার পর স্থানীয় একটি আরবি দৈনিকের বরাত দিয়ে শ্রমবিষয়ক বিশেষ কমিটির প্রধান নিদাল রিদওয়ান বলেন, ‘একটি স্বতন্ত্র কমিটি গঠন করে গ্রিনকার্ড পদ্ধতির কার্যক্রম বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া অতি দ্রুত শুরু করা হবে।

এই পদ্ধতি সৌদি স্বরাষ্ট্র (জাওয়াজাত) ও শ্রম মন্ত্রণালয়ের সংগে সমন্বয় হয়ে কাজ করবে।’

প্রসঙ্গতঃ সৌদিতে বর্তমানে একজন বিদেশি নাগরিক কেবল কফিল পদ্ধতি বা হজ্বের জন্য দেশটিতে প্রবেশ করতে পারেন। নতুন এই পদ্ধতি চালু হলে দক্ষ কর্মীরা তাঁদের নিজের জিম্মাদার হয়ে সৌদিতে কাজের সন্ধান করতে পারবেন। শুধু তাই নয়, বর্তমানে যে কাফালা পদ্ধতি চালু রয়েছে তার অবসান ঘটবে গ্রিনকার্ড চালু হলে।

এসএইচ-২৮/১৩/০৫ (প্রবাস ডেস্ক, তথ্যসূত্র : ভয়েস বাংলা)