বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক বর্ষ তুরস্কে উদ্‌যাপিত হবে

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১০, ২০১৮ আপডেটঃ ৫:০৭ অপরাহ্ন

তুরস্কে ২০১৯ সালে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক বর্ষ উদ্‌যাপিত হবে। তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় দেশটির সংস্কৃতি ও পর্যটনবিষয়ক মন্ত্রী মেহমেত নুরি এরসয় ও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপির মধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে তাঁরা এ বিষয়ে একমত হোন।

তাঁরা আশা প্রকাশ করেন, এর মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগ ও সমঝোতা আরো বৃদ্ধি পাবে। ৮ অক্টোবর বিকেলে অত্যন্ত উষ্ণ ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সংগে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম আল্লামা সিদ্দীকী ছাড়াও ছিলেন ইতিহাসবিদ ও ইতিহাস গবেষক মুনতাসীর মামুন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নির্বাহী সভাপতি শাহরিয়ার কবির, শিল্পী হাশেম খান, লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) কাজী সাজ্জাদ আলী জহির বীর প্রতীক ও স্থপতি রবিউল হোসেন।

বছরব্যাপী তুরস্কের বিভিন্ন শহরে শিল্প ও চারুকলাভিত্তিক অনুষ্ঠান আয়োজন, সাংস্কৃতিক প্রতিনিধিদল বিনিময়, বিশেষ পুস্তক-পুস্তিকা প্রকাশনার মাধ্যমে সাংস্কৃতিক বর্ষ উদ্‌যাপনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ দূতাবাস এবং তুরস্কের সংস্কৃতি ও পর্যটনবিষয়ক মন্ত্রণালয় যৌথভাবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

আ ক ম মোজাম্মেল হক তুরস্কের সংস্কৃতি মন্ত্রীকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলকে আতিথেয়তা প্রদান করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আশাবাদ ব্যক্ত করেন, বাংলাদেশ-তুরস্ক দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নে এই সফর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি তুরস্কের সংস্কৃতি মন্ত্রীকে অবহিত করেন, বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য সাম্প্রতিক সময়ে সরকার কর্তৃক গৃহীত প্রকল্পসমূহের ধারণা দেওয়ার লক্ষ্যেই তাঁরা সফরে এসেছেন।

তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন, তুরস্কের সংস্কৃতি ও পর্যটনবিষয়ক মন্ত্রণালয় আগামী দিনগুলোতে এ প্রকল্পের জন্য সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে। তুরস্কের সংস্কৃতি মন্ত্রী সহযোগিতা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দেন।

এসএইচ-০৬/১০/১০ (প্রবাস ডেস্ক)