মালয়েশিয়ায় ফের সক্রিয় পাচারচক্র

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৫, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:৪৫ অপরাহ্ন

ফের সক্রিয় হয়ে উঠছে মানব পাচারচক্র। চক্রের প্ররোচণায় সাগরপথে মালয়েশিয়া প্রবেশের দায়ে আটক হচ্ছে বাংলাদেশিরা।

গত এক মাসে ৪৬ বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। উভয় দেশের কঠোর অবস্থানের পরও সাগরপথে চলছে মানবপাচার।

৩ আগস্ট ব্যাটালিয়ান-৪-এর একটি অভিযানে সেলাংগারের কামপুং তাংজুন সেপাং এলাকা থেকে ১৩ জন বাংলাদেশিকে আটক করে।

ব্যাটালিয়ান-৪-এর কমান্ডার জুলফেন্ডি সাংবাদিকদের জানান, আটককৃত সবাই এ দেশে অবৈধভাবে প্রবেশ করে। এরপর তারা প্রাইভেটকারে করে গন্তব্য স্থানে যাওয়ার সময় সন্দেহ হলে ওই প্রাইভেটকার চেক করে ১৩ জন বাংলাদেশিসহ স্থানীয় চারজনকে আটক করে পুলিশ।

গত ৬ জুলাই অবৈধ প্রবেশের দায়ে আটক হয় আরও ৩৩ বাংলাদেশিকে।

একটি সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়া থেকে সবুজ সংকেতের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে অবৈধ পথে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিদের নিয়ে আসছে মানবপাচার চক্র। যার নেপথ্যে রয়েছে উভয় দেশের রাঘববোয়ালরা।

জনপ্রতি তিন থেকে চার লাখ টাকা চুক্তির বিনিময়ে মালয়েশিয়ায় নিয়ে আসছে। পৌঁছানোর পর টাকার বিনিময়ে মুক্তি দেয়া হয় এ পথে আসা বাংলাদেশিদের।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যতদিন না এ চক্রের মূল উৎপাটন না করা হয় ততদিন সাগরপথে লোক আসবেই। ঢিলেঢালা অবস্থানে থেকে এ পথ করা যাবে না।

ওই প্রবাসী বলেন, আটক হওয়া বাংলাদেশিদের বাড়িতে যোগাযোগ করলেই বেরিয়ে আসবে কারা এই কলকাঠি নাড়ছে এবং কারা এই মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত।

এদিকে দেশটিতে থাকা অবৈধ অভিবাসীদেরও সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা দিয়েছে সে দেশের সরকার। ১ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছে বিফোরজি নামের এ কর্মসূচি। ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসীরা নিজ নিজ দেশে মালয়েশিয়া ছাড়তে শুরু করেছে।

এ কর্মসূচির অধীনে প্রায় ৪ লাখ অবৈধ অভিবাসী নিজ নিজ দেশে ফিরে যাবে বলে বলছে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ।

এসএইচ-০৭/০৫/১৯ (প্রবাস ডেস্ক)