বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাইসহ নিহত ৩

প্রকাশিতঃ জুন ১০, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:৪২ অপরাহ্ন

বগুড়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুই ভাইসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। রোববার গভীর রাতে নন্দীগ্রামের পদ্মপুকুর ও সোমবার সকালে শেরপুরের ছোনকা এলাকায় এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নন্দীগ্রাম উপজেলার থালতামাঝগ্রামের তৈয়বপুর গ্রামের আয়েজ উদ্দিনের ছেলে আঙ্গুর আলী (৪৫), তার ছোট ভাই হাবিবুর রহমান (১৯) ও শাজাহানপুর উপজেলার চকভালি গ্রামের শাহাদত হোসেনের ছেলে ফরিদ উদ্দিন (৪৫)।

নন্দীগ্রাম থানার কুমিড়া পন্ডিতপুকুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুর মোহাম্মদ জানান, আঙ্গুর আলী ও তার ভাই হাবিবুর রহমান রাজশাহী থেকে দু’টি মহিষ কিনে রোববার রাতে শ্যালো ইঞ্জিন চালিত ভটভটিতে তুলে বগুড়ার নন্দীগ্রামে ফিরছিলেন।

রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই ভটভটি পদ্মপুকুর মোড় এলাকায় পৌঁছুলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ভটভটির নিচে চাপা পড়ে দুই ভাই নিহত হয়। এ সময় এক মহিষও মারা যায়। পরে ভটভটি চালক পালিয়ে যান।

বগুড়ায় হাইওয়ে পুলিশের কুন্দারহাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাজল নন্দী জানান, সোমবার সকালে শেরপুর উপজেলার ছোনকা বাজার এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ফরিদ উদ্দিন নামে এক নির্মাণ শ্রমিক নিহত এবং অপর দু’জন আহত হয়েছেন।

তিনি বলেন, নীলফামারী থেকে ঢাকাগামী সাদিক পরিবহনের একটি বাস ছোনকা এলাকায় পৌঁছালে বিপরীতমুখী ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় ওই মহাসড়ক মেরামত কাজে নিয়োজিত ফরিদ উদ্দিন নামে এক শ্রমিক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত অপর দু’জনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিএ-০৯/১০-০৬ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)