মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক দফতরি

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯ আপডেটঃ ৫:৫৫ অপরাহ্ন

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় একটি মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ওই প্রতিষ্ঠানেরই দফতরির বিরুদ্ধে। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

আটক বাবলু গায়েন (৪৫) থালতামাঝগ্রাম পশ্চিমপাড়ার প্রয়াত আকবর আলী গায়েনের ছেলে। এ ব্যাপারে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নন্দীগ্রাম উপজেলার কুমিড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আজিজুর রহমান জানান, শনিবার সকালে ক্লাস শেষে ১৩ বছর বয়সী ওই শিক্ষার্থী মাদ্রাসার পাশে বাজারে একটি কমিউনিটি ক্লিনিকে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে দফতরি বাবলুর সঙ্গে তার দেখা হয়। কৌশলে বাবলু তার বাড়িতে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।

তিনি জানান, পরে ওই ছাত্রীকে বাড়িতে তালাবদ্ধ অবস্থায় রেখে বাইরে যায় বাবলু। গ্রামের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে বাবলুকে আটক এবং ছাত্রীকে উদ্ধার করে তারা।

ইন্সপেক্টর আজিজুর রহমান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত বাবলু গায়েন ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শওকত কবির জানান, মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত দফতরি বাবলু গায়েনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তিনি বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নির্যাতনের শিকার ছাত্রীকে রোববার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

বিএ-০৭/১৪-০৯ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)