রাজশাহী কলেজ পরিদর্শন করলেন শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব

প্রকাশিতঃ জুলাই ২৯, ২০১৯ আপডেটঃ ৯:৩৪ অপরাহ্ন

রাজশাহী কলেজের চলমান উদ্ভাবনী প্রকল্পসমূহ সরেজমিনে পরিদর্শন করলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের চিফ ইনোভেশন অফিসার ও অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও অর্থ) ড. অরুণা বিশ্বাস। সোমবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তিনি রাজশাহী কলেজ পরিদর্শন করেন।

এসময় তিনি উচ্চ মাধ্যমিকের দ্বাদশ বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগ, মনোবিজ্ঞান বিভাগ, অর্থনীতি বিভাগ ও তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব পরিদর্শন করেন।

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের ইনোভেশন টিমের সদস্য সচিব ও উপসচিব জাকিয়া পারভীন, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহাঃ হবিবুর রহমান, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ কামাল হোসেন, উপ-পরিচালক শরমিন ফেরদৌসী চৌধুরী, রাজশাহী কলেজের উপাধ্যাক্ষ প্রফেসর মোহাঃ আব্দুল খালেক ও প্রোগামার মিঠু গাঙ্গুলীসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও শিক্ষকগণ।

ড. অরুণা বিশ্বাস অত্র বিভাগগুলোর মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে ক্লাশ পরিদর্শন করেন। উ”চ মাধ্যমিকের দ্বাদশ বিজ্ঞান বিভাগের স্টুডেন্ট সেন্টার্ড লার্নিং পরিদর্শন কালে তিনি বলেন, ইনোভেশনের সাথে এখনি তোমাদের পরিচিতি দরকার। আমরা লেখাপড়া করবো একটা চাকরি পাবো।

বাবা-মাদের খাওয়াবো, বোনদের বিয়ে দিবো। ভালোভাবে বেঁচে থাকবো এটাই এতোদিন আমাদের প্রত্যাশা ছিলো। কিন্তু এখন কী আমরা সেই চিন্তা করি? আমরা এখন ওই চিন্তুগুলো থেকে বের হয়ে এসেছি।

ড. অরুণা বিশ্বাস বলেন, তোমাদের এখন প্রধান কাজ পড়ালেখা। এই পড়ালেখার পদ্ধতিকে তোমরা একটু ইনোভেশনের মাধ্যমে সহজ করে নিয়ে আসো।

এসময়ে তিনি শিক্ষার্থীদের নতুন ভাবে উদ্ভাবনীর মাধ্যমে লেখাপড়া করা পরামর্শ দেন। তিনি বলেন দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বায়নের যুগে তাল মিলিয়ে না চলতে পারলে ভাল কিছু আশা করা যাবেনা। শিক্ষার্থীদের আগামীদিনের দেশের কর্ণধার উল্লেখ করে ভালভাবে লেখা পড়া করে দেশের উন্নয়নে কাজ করার আহবান জানান।

তিনি শিক্ষার্থীদের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। শিক্ষার্থীরা তাদের আসন এবং শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কে তুলে ধরেন। রাজিয়া সুলতানা ও রাসেদ বলেন, এই পদ্ধতিতে পড়ালেখা করলে দ্রুত গ্রহন করা যায় এবং দীর্ঘদীন মনে রাখা যায়। তারা প্রতিটি বিভাগের ক্লাস সমুহে একই পদ্ধতিতে পাঠদানের জন্য অধ্যক্ষের নিকট আবেদন জানান।

শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব পরিদর্শন কালে শিক্ষার্থীরা জানান, আমাদের কম্পিউটার সম্পর্কে কোনো জ্ঞান ছিলোনা। এখন আমরা কম্পিউটারে লিখতে পারি এবং ক্লাস প্রেজেন্টেশন করতে পারি। এই প্রশিক্ষাণ কম্পিউটার প্রোগ্রামিং সহায়ক হচ্ছে বলেও জানান তারা।

ড. অরুণা বিশ্বাস আরো বলেন, রাজশাহী কলেজের সার্বিক অবস্থা অত্যন্ত ভাল। পড়ালেখার পরিবেশ চমৎকার। অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী পরিশ্রম করে পাঠদান করাচ্ছেন। এছাড়াও এসডিজি-৪ পুরনের জন্য এই কলেজ সর্বদা পরিশ্রম করে যাচ্ছে। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীগণ আন্তরিক হওয়ায় অত্র কলেজের ফলাফলও ভাল বলে তিনি উল্লেখ করেন। আগামীতেও এই ধারা অব্যাহত রাখার জন্য অধ্যক্ষসহ সকল শিক্ষকের প্রতি আহবান জানান তিনি।

এর আগে অতিথিবৃন্দ রাজশাহী কলেজে আসলে অধ্যক্ষের পক্ষ থেকে তাঁদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

বিএ-১৩/২৯-০৭ (নিজস্ব প্রতিবেদক)