আন্দোলনরত রাবি শিক্ষার্থীদের পিটিয়ে সরালো পুলিশ

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৫, ২০১৯ আপডেটঃ ১০:১০ অপরাহ্ন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের বিক্ষোভ করতে দেয়নি পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করলে পুলিশ তাদের বলপূর্বক সরিয়ে দেয়।

এ সময় পুলিশের হামলায় দুই শিক্ষার্থী আহত হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা।

পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে মানববন্ধন শেষে তারা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে পুলিশ এসে তাদেরকে সড়ক ছেড়ে দিতে বলেন।

কিন্তু শিক্ষার্থীরা তাদের কথায় কর্ণপাত না করে বিক্ষোভ চালিয়ে যেতে থাকেন। এসময় পুলিশ আন্দোলনকারীদের উপর চড়াও হলে পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের বাকবিতণ্ডা হয়। পরে পুলিশ তাদেরকে পিটিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।

এতে দুই শিক্ষার্থী আহত হন। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাথমিক চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে চিকিৎসা দেওয়া হয়ে। আহতরা হলেন আব্দুল মজিদ অন্তর ও মাজহারুল ইসলাম। তারা দুজনই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

এদিকে বিক্ষোভের সময় শ্যামলী পরিবহন বাসের চালকের গায়ে হাত তোলায় একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তার নাম শুভ। পুলিশ আটককৃতকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে জানায়।

কিন্তু শুভ রাজশাহীর বেসরকারি নর্থবেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী বলে দাবি করেন আন্দোলনকারী আব্দুল মজিদ অন্তর।

রাবি সংলগ্ন মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদের উপর হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

জনসাধারণের ভোগান্তি যাতে না হয় সেজন্য শিক্ষার্থীদেরকে মহাসড়ক ছেড়ে ক্যাম্পাসের ভেতরে যেতে বলা হয়েছিল।

তিনি বলেন, বাসচালকের গায়ে হাত তোলায় শুভ নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

বিএ-২২/০৫-১১ (শিক্ষা ডেস্ক)