রাবি শিক্ষক লাঞ্চিতের ঘটনায় প্রতিবাদ

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারী ১৩, ২০২০ আপডেটঃ ৫:৩৩ অপরাহ্ন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মু. আলী আসগরকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে মৌন মিছিল ও মানববন্ধন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ড. শামসুজ্জোহা চত্বরে ‘দূর্নীতির বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়’ ব্যানারে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের একাংশ এ মানবন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় সভ্য মানুষের জায়গা। এখানে মত পার্থক্য-দ্বিমত থাকবেই। ক্রপ সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক মু. আলী আসগর নিজ বিভাগে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেছিলেন। উচ্চ আদালত তার রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সেই নিয়োগ বাতিল করেছিলো। এ বিষয় নিয়ে কিছুদিন আগে অধ্যাপক মো. খাইরুল ইসলাম তাকে হত্যার হুমকি প্রদান করেছিলেন। এ ঘটনায় অধ্যাপক আসগর থানায় জিডি করেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল তাকে লাঞ্চিত করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনা শিক্ষক সমাজের জন্য কলঙ্কজনক। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবি যেন অধ্যাপক খাইরুল ইসলামের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করার হয়। এছাড়া তার সদস্য পদ বাতিল করতে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের প্রতি বক্তারা আহ্বান জানান।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. সুলতান-উল-ইসলাম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এস এম এক্রাম উল্যাহ, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মো. ইলিয়াছ হোসেন, ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. সোলাইমান চৌধুরী, শরীরচর্চা শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক মো. কামরুজ্জামান চঞ্চল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, শামসুজ্জোহা চত্বর থেকে একটি মৌন মিছিল বের হয়ে ক্যাম্পাসে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় একই স্থানে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।

প্রসঙ্গত, বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের ডিন অফিসে ক্রপ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মু. আলী আসগরকে বিভাগের আরেক অধ্যাপক খাইরুল ইসলাম শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেছেন বলে অভিযোগ উঠে।

বিএ-০৮/১৩-০২ (রাশেদ রাজন)