শাকিবকে দুষলেন, অপুকে পরামর্শ দিলেন তসলিমা

প্রকাশিতঃ ডিসেম্বর ৬, ২০১৭ আপডেটঃ ৬:৪৭ অপরাহ্ন

সম্প্রতি চিত্রনায়িকা ও স্ত্রী অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন চিত্রনায়ক শাকিব খান। বিষয়টি নিয়ে দেশের সোশ্যাল মিডিয়ায় কম জলঘোলা হচ্ছে না।

এরই মাঝে শাকিবকে দুষে অপুকে পরামর্শ দিলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি বলছেন, ‘শাকিবের মতো আত্মম্ভরী পুরুষতান্ত্রিকের সংগে তালাক হয়ে যাওয়া অবশ্য ভালো। স্বনির্ভর মেয়ে নিজের দেখভাল নিজেই করতে পারে। ‘

তসলিমা ফেসবুকে লেখার শুরুতেই বলেন, বাংলাদেশের ছবির হিরো শাকিব তালাক দিচ্ছে বাংলাদেশের ছবির হিরোইন অপু বিশ্বাসকে। অপুর দোষ, অপু তার স্বামীর নির্দেশ পালন করেনি, তার কথা শোনেনি।

তিনি বলেন, শাকিবকে ভালোবেসে অপু নিজের ধর্ম ছেড়ে শাকিবের ধর্ম গ্রহণ করেছে, শাকিবের বাড়িতে ঝি চাকরের মতো কাজকর্ম করেছে। শাকিব বিয়ের ব্যাপারটা লুকিয়ে রাখতে বলেছে বলে লুকিয়ে রেখেছে, বাচ্চা হওয়ার খবরটাও লুকিয়ে রাখতে বলেছে বলে দীর্ঘকাল লুকিয়ে রেখেছে, বাচ্চা হওয়ার সময় শাকিব হাসপাতালে যায়নি তারপরও শাকিবের জন্য অপুর ভালোবাসা কিছু কমেনি।

তিনি বলেন, এখন বাচ্চা কোলে মেয়েটি পাচ্ছে তালাকনামা। শাকিবের মতো আত্মম্ভরী পুরুষতান্ত্রিকের সংগে তালাক হয়ে যাওয়া অবশ্য ভালো।

স্বনির্ভর মেয়ে নিজের দেখভাল নিজেই করতে পারে।

অপু পরামর্শ দিয়ে তসলিমা বলেন, শাকিবের জন্য কান্নাকাটি হাহুতাশ বন্ধ করতে হবে অপুকে। আপাতত অপু বিশ্বাসের কোনও পুরুষকে বিশ্বাস করা উচিত নয়। হজ্ব করাও উচিত নয়। মানুষের পায়ের তলায় পিষ্ট হয়ে মরে যাওয়ার আশংকা ছাড়া ওতে সত্যিকার কোনও ফায়দা নেই।

তিনি বলেন, অপুকে এখন নিজের পায়ের তলার মাটি যেমন আরো শক্ত করতে হবে। মনের ভেতরের মাটিও আরও শক্তত করতে হবে। পায়ের তলার মাটি, মনের ভেতরের মাটি- দুটোই এমন নরম যে যে কেউ তাদের ডুবিয়ে দিতে পারে কাদায়, যে কেউ আবার তাদের মনেও অনায়াসে ডুবে যেতে পারে।

প্রেম করে শাকিব-অপুর বিয়ে করেন ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল। কিন্তু ৯ বছর বিয়ের খবর গোপন রাখেন এই তারকা জুটি। চলতি বছরের ১০ এপ্রিল একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে ছয় মাস বয়সী ছেলে আব্রামকে সঙ্গে নিয়ে হাজির হন অপু বিশ্বাস। বিয়ের খবর প্রকাশের আট মাসের মাথায় বিবাহবিচ্ছেদে গেলেন তারা।

আরএম-৩৮/০৬-১২ (বিনোদন ডেস্ক)