তিন নায়িকা কি বললেন কু-প্রস্তাব নিয়ে?

প্রকাশিতঃ এপ্রিল ১৬, ২০১৮ আপডেটঃ ৫:৩২ অপরাহ্ন

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে নির্মম বাস্তবতা ‘কাস্টিং কাউচ’। অর্থাৎ এখানে আগে দাও পরে নাও। যেটাকে সহজ ভাষায় অনেকে গিভ অ্যান্ড টেকও বলে থাকেন। বিষয়টি প্রকাশ্যে স্বীকারও করেছেন অনেক তারকা শিল্পী। কেউ আবার লুকিয়ে রাখেন। সময় হলে মুখ খোলেন।

সারা বিশ্বের সব ইন্ডাস্ট্রিতেই অভিনেত্রীদের কম-বেশি কাস্টিং কাউচের শিকার হতে হয়। এ নিয়ে প্রতিবাদী হতেও দেখা গেছে অনেক নায়িকাকে। এই যেমন কয়েকদিন আগে তামিল সিনেমার অভিনেত্রী শ্রী রেড্ডি ‘কাস্টিং কাউচ’ এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে রাস্তায় টপলেস হয়েছিলেন। এ নায়িকার মতো শ্রুতি হাসান, রাধিকা আপ্তে ও পার্বতীর মতো দক্ষিণী অভিনেত্রীরাও কাস্টিং কাউচ নিয়ে মুখ খুলেছেন।

আরও খবর : শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে প্রকাশ্যে কি বললেন তারকারা?

১. শ্রুতি হাসান
এক সংবাদমাধ্যমের অনুষ্ঠানে এসে শ্রুতি নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছিলেন। শ্রুতি বলেন, ১৮ বছর বয়সেই এক তামিল প্রযোজকের কাছ থেকে অশ্লীল প্রস্তাব পেতে হয়েছিল তাকে। এরপর কন্নড় ছবির রিমেকের জন্যও কু-প্রস্তাব পেয়েছেন এই অভিনেত্রী। শুধু তাই নয় পর পর কয়েকটি ছবির চারজন প্রযোজকের কাছ থেকেও একই প্রস্তাব পেয়েছিলেন শ্রুতি।

২. রাধিকা আপ্তে
বলিউডে অভিনয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছেন রাধিকা। তার ফিল্ম ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল দক্ষিণী ছবি দিয়ে। এক সাক্ষাৎকারে রাধিকা জানিয়েছিলেন, একজন দক্ষিণী অভিনেতা রাধিকাকে ফোন করে তার ঘরে ডেকেছিলেন। কিন্তু, রাধিকা সেই প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন। পরে রাধিকার সঙ্গে এ নিয়ে ওই অভিনেতার তর্ক-বিতর্কও হয়। শুধু তাই নয়, রাধিকা আরও বলেছিলেন, এক ব্যক্তির সঙ্গে সহবাসের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল রাধিকাকে। সে প্রস্তাব মেনে নিলে রাধিকাকে বলিউডে কাজ করার সুযোগ দেওয়ার কথাও বলা হয়েছিল।

৩. পার্বতী
মালায়লাম ছবিতে নারীদের ভুলভাবে দেখানো নিয়ে প্রতিবাদ করেছিলেন পার্বতী। তিনিও কাস্টিং কাউচের শিকার হয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন। তিনি সরাসরি বলেছিলেন, মালায়লাম ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কাস্টিং কাউচ আছে। পার্বতী বলেছিলেন, আমি বুঝি না কেন এই বিষয়টা সবাইকে অবাক করে। কারণ, প্রত্যেক ইন্ডাস্ট্রিতেই কাস্টিং কাউচ আছে। যদিও আমাকে তামিল বা তেলেগু ইন্ডাস্ট্রিতে কোনোদিনও এমন কিছুর মুখোমুখি হতে হয়নি। তবে মালায়লাম ইন্ডাস্ট্রিতে হতে হয়েছে।

এসএইচ-২২/১৬/০৪ (বিনোদন ডেস্ক)