মোদি ও অমিত শাহকে নিয়ে শিখ গায়িকার ভিডিওতে তোলপাড়

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১৬, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:৫৭ অপরাহ্ন

শিখ গায়িকা হার্ড কাউর আবারো বিতর্কের মুখে। জুন মাসে তার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ আনা হয়েছিল। এবার তার পোস্ট করা একটি ভিডিওর জন্য টুইটার সাসপেন্ড করল তার অ্যাকাউন্ট।

সম্প্রতি যে ভিডিওটি তিনি পোস্ট করেন টুইটারে সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহের সম্পর্কে কুৎসিত কিছু মন্তব্য রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ইন্ডিয়া টুডের একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২ মিনিট ২০ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে হার্ড কাউরের সঙ্গে ছিলেন খালিস্তানি সমর্থকরা।

ওই ভিডিওতে একদিকে যেমন প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সম্পর্কে কিছু শক্ত ভাষা ব্যবহৃত হয়েছে, অন্যদিকে শিখ ধর্মাবলম্বীদের জন্য আলাদা রাষ্ট্র, খালিস্তান-এর দাবি তোলা হয়েছে, এমনটাই জানা গেছে ইন্ডিয়া টুডে-র প্রতিবেদনে। ভিডিওটি পোস্ট হওয়ার পরে প্রচুর শেয়ার হতে থাকে।

ইন্ডিয়া টুডে-র প্রতিবেদন অনুযায়ী, খালিস্তানি আন্দোলনের সমর্থক কাউরের বিরুদ্ধে এর পরেই টুইটারের পক্ষ থেকে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। সাসপেন্ড করে দেয়া হয় হার্ড কাউরের অ্যাকাউন্টটি। এর আগে জুন মাসে হার্ড কাউরের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ ওঠে। মোহন ভাগবত ও যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে বিশেষ কিছু মন্তব্য করেছিলেন তিনি। তার পরিপ্রেক্ষিতেই ওই পদক্ষেপ নেয়া হয়।

হার্ড কাউর বেশ কিছু বলিউড ছবিতে গান গেয়েছেন। বিশেষ করে ‘বাচনা ইয়ে হাসিনো’ এবং ‘এবিসিডি টু’-তে তার গান অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়। এছাড়া ‘পাতিয়ালা হাউস’ ছবিতে অভিনয়ও করেছেন তিনি। ওই ছবি থেকেই মূলত এদেশে তার পরিচিতি বাড়ে।

এর আগে চলতি বছরের জুনেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতকে নিয়ে বিতর্কিত পোস্ট করায় হর্দ কাউরের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা রুজু করা হয়।

আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবতের একটি ছবি দিয়ে তাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বিতর্কিত মন্তব্য করেন যে, “ইতিহাসে মহাত্মা গান্ধি এবং মহাবীর ব্রাহ্মণ্য বর্ণবাদী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। আপনি জাতীয়তাবাদী নন।”

এর এক দিন পরেই, তিনি যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধেও আপত্তিকর মন্তব্য পোস্ট করেন।

আরএম-১৫/১৬/০৮ (বিনোদন ডেস্ক)