বাংলাদেশের প্রযোজক-নায়িকাদের যত প্রেম

প্রকাশিতঃ আগস্ট ১৮, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:০১ অপরাহ্ন

প্রেম যে কখন কার সঙ্গে হয় কে জানে! এই যে, নায়িকা সিমলা ৮ বছরের ছোট প্রযোজক পলাশের প্রেমে পড়লেন। সেই প্রেম বিয়ে পর্যন্ত নিয়ে যায়। কিন্তু সে বিয়ে আর টিকে না। সিমলার প্রেম বিয়ে এতদিন গুজব থাকলেও সেটা প্রকাশ্যে আসে ভয়ানকভাবে। কতটা ভয়ানক সেটা গেল কয়েকদিনে নিশ্চয়ই অজানা নেই কারো।

প্রযোজকের প্রেমে পড়া দোষের কিছু নয়। হলিউড- বলিউডে তো অহরহ হচ্ছে সিনেমার গুরুত্বপূর্ণ এই দুই কলাকুশলীর প্রেম বিয়ে।

জহির রায়হান নির্মাতা হিসেবে পরিচিত মুখ থাকলেও তিনি প্রযোজনা করতেন। সে হিসেবে দুই নায়িকাকেই তিনি বিয়ে করলেন। সে সময়ের মানুষের বলেন, আরও কিছু প্রেমের গুঞ্জন ছিল তাকে নিয়ে। প্র

যোজক এহতেশামের নামেও ছিল জনৈক নায়িকার সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন। রোজিনা ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন চলচ্চিত্র প্রযোজক ফজলুর রশিদ ঢালীকে।

তিনি মারা যাওয়ার পর ১৯৯৫ সালে প্রবাসী এক বাংলাদেশীকে বিয়ে করে প্রবাসে স্থায়ী হয়েছেন রোজিনা। শাবানার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এস এস প্রডাকশন্সের সহ প্রযোজক ছিলেন ওয়াহিদ সাদিক।

তিনি মূলত একজন সরকারী কর্মকর্তা ছিলেন। শাবানা তাকেই বিয়ে করে ফেললেন। সেকাল ঘুরে একালেও এই প্রেম অব্যাহত রয়েছে।

একালের সবচেয়ে আলোচিত প্রেম আব্দুল আজিজ ও মাহিয়া মাহি। আব্দুল আজিজের হাত ধরেই সিনেমায় পদার্পন মাহির। ঠিক কখন প্রেম হয়ে যায় কে জানে। মাহি কখনো স্বীকার পায়নি সে কথা।

তবে আব্দুল আজিজ অকপটে তাদের প্রেমের কথা স্বীকার করেছেন। দিয়েছেন স্যোশাল মিডিয়ায় বড়সর স্ট্যাটাসও। তাই গুঞ্জন বলে অস্বীকার করার কোন কারণ নেই এই প্রেমের।

প্রযোজক ডিপজলের প্রেমে পড়েছিলেন রেসিও। গুঞ্জন রয়েছে, তাইতো টানা সিনেমায় সুযোগ দিতেন ডিপজল। তবে সেই প্রেম এখন আর নেই। ডিপজলও সিনেমায় নিয়মিত নেই, রেসিও অন্যকোথাও সুখে শান্তিতে ঘর সংসার করছেন।

জাহিদ হাসান অভি এ সময়ের তরুণ প্রযোজক। টাইগার মিডিয়া নামে তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সুনাম রয়েছে। একাধিক ব্যবসাসফল সিনেমার প্রযোজক ও পরিবেশক তিনি। ইন্ডাস্ট্রিতে তার সঙ্গে গুঞ্জন রয়েছে নায়িকা তানহা তাসনিয়ার প্রেমের সম্পর্কের। মাঝেমধ্যে স্যোশাল মিডিয়ায় তাদের একসঙ্গে ছবিও দেখা যায়।

তরুণ নাট্য প্রযোজক সাব্বির চৌধুরী। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এই প্রযোজক প্রেমে পড়েন ছোট ও বড় পর্দার অভিনেত্রী তানিয়া বৃষ্টির। সেই প্রেম বিয়েতে পরিণত হয়। ২০১৭ সালে বিয়ে করেছিলেন তারা।

জুয়েল নামের নবাগত একজন প্রযোজককে আঁচল বিয়ে করেছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। তবে সেই গুঞ্জনের আপাতত কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি।

‘মুসাফির ছবির নায়িকা ও প্রযোজকের দুই বছরের প্রেমের সম্পর্কের সফল পরিণতি হয় বিয়েতে। পারিবারিকভাবে ‘মুসাফির’ ছবির নায়িকা মারজান জেনিফা বিয়ে করেন ওই ছবির প্রযোজক জোবায়ের আলমকে।

অনন্য মামুনের ‘রোমান্স’ নামের একটি ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় কাজ শুরু করলেও মারজান জেনিফা আলোচিত হন আরিফিন শুভর সঙ্গে ‘মুসাফির’ ছবিতে নায়িকা হয়ে।

‘মুসাফির’ ছবির মাধ্যমে মারজান আলোচনায় এলেও এরপর আর নতুন কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হননি। জানা গেছে, এ বছরের শেষ দিকে ‘মুসাফির’ ছবির সিক্যুয়েল ‘মুসাফির টু’র শুটিং শুরু হবে।

সেই ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তুতি চলছে নায়িকার। মারজান জেনিফারের বর জোবায়ের আলম ইংরেজি দৈনিক দ্য বাংলাদেশ টুডের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশকও। মারজানের এটি প্রথম বিয়ে হলেও জোবায়ের আলমের এটি দ্বিতীয় বিয়ে। নায়িকা এখন সংসারেই ব্যস্ত।

‘ঢাকা টু বোম্বে’ ছবির প্রযোজক মাহবুবুর রহমান মনিকে বিয়ে করেন সাহারা। বিয়ের পরে প্রযোজক ও নায়িকা দুজনেই নাই সিনেমায়। নেই ফেরারও কোন সম্ভাবনাও।

শুরুটা যেভাবে হয়েছিল এক নায়িকা প্রযোজকের ব্যর্থ প্রেমের গল্প নিয়ে। শেষটাও সেভাবেই করা যাক। নায়িকারা নানা সময়েই টাকা ওয়ালা ধরে নিয়ে আসেন সিনেমায়।

এক কিংবা দুই সিনেমার প্রযোজনা করে তাদের খায়েশ মিটে যায়। পরবর্তীতে কারও কারও প্রাপ্তি বলতে কোন নায়িকার সঙ্গে প্রেম কিংবা বিয়ে। সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক অভি প্রযোজনাতেও নাম লিখিয়েছিলেন। তিনি মডেল তিন্নির প্রেমে পড়েন। সেই প্রেমে খুন হন তিন্নি।

বছর চারেক আগে নবাগত প্রযোজক শুভ চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রেমের প্রস্তাব দেয়া এবং সাইনিং মানি নিয়ে গড়িমসির অভিযোগ এনেছিলেন চার নায়িকা। চার নায়িকাই দাবি করেন, ফেইসবুকের মাধ্যমেই তাদের সঙ্গে পরিচয় হয় শুভর।

নিজেকে ‘গানের মানুষ’ দাবি করে ধীরে ধীরে সখ্যতা গড়ে তোলেন। তারপর তাদের বলা হয়, ‘প্রবাসী প্রেম খান’ নামে একটি সিনেমা প্রযোজনা করবেন, যাতে তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি সহ-প্রযোজক হিসেবেও থাকবেন। পরবর্তীতে এরকম কিছুই হয়নি।

সতকর্তা হচ্ছে, এমন কেলেঙ্কারির কথা প্রায়ই শোনা যায়। প্রযোজক পরিচয়ে খাতির জমিয়ে তোলে উঠতি নায়িকাদের সঙ্গে। এক পর্যায়ে হয় মিডিয়ার নাম খারাপ। আবার অনেক নামে মডেল ও নায়িকাও ফুসলিয়ে নিয়ে আসে প্রযোজক। তাদের কাছ থেকে সংশ্লিষ্টদের দূরে থাকাই শ্রেয়।

আরএম-০৯/১৮/০৮ (বিনোদন ডেস্ক)