নতুন সিনেমার চেয়েও বেশি দর্শক টেনেছেন সালমান শাহ

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৩, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:০৩ অপরাহ্ন

‘সালমান শাহের মৃত্যুর ২৩ বছর পরেও তার সিনেমা নিয়ে দর্শকের যেমন আগ্রহ দেখেছি এটা সত্যি দারুণ। এ সময়ের অনেক তারকাদের নতুন ছবি নিয়ে দর্শকের তেমন আগ্রহ দেখি না। সালমান শাহ উৎসবে ছবির যা সেল হয়েছে অনেক নতুন ছবিও এই ব্যবসাটা করতে পারে না।’ কথাগুলো বলছিলেন রাজধানীর মধুমিতা সিনেমা হলের মালিক ইফতেখার-উদ্দিন নওশাদ।

সম্প্রতি রাজধানীর মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে হয়ে গেল সপ্তাহব্যাপী ‘সালমান শাহ জন্মোৎসব-২০১৯’। ১৯ সেপ্টেম্বর জমকালো উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে এই উৎসবের যাত্রা হয়। ২৬ সেপ্টেম্বর উৎসবের পর্দা নামে।

এখানে অমর নায়ক সালমান শাহ অভিনীত ৭টি ছবি প্রদর্শিত হয়েছে। ২০ সেপ্টেম্বর উৎসবের প্রথম ছবি হিসেবে প্রদর্শিত হয় ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’। এরপর প্রদর্শিত হয়েছে সালমান শাহের জনপ্রিয় ছবি ‘তোমাকে চাই’, ‘মায়ের অধিকার’, ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ ও ‘অন্তরে অন্তরে’।

শেষ দিন ‘সত্যের মৃত্যু নেই’ ছবিটি প্রদর্শনের মাধ্যমে পর্দা নামে এই আয়োজনের। প্রতিদিন তিনটি করে শো হয়েছে সিনেমার। টিকিট মূল্য রাখা হয়েছিলো ১০০ ও ১৫০ টাকা।

সব মিলিয়ে সালমান শাহ উৎসব কেমন গেল? এ বিষয়ে জানেতে চাওয়া হলে ইফতেখার-উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘এক সপ্তাহে অভাবনীয় দর্শক এসেছে। এতোটা সাড়া পাবো এটা ভাবিনি। আমার ধারণা আয়োজকরাও এমনটা ভাবেননি।’

তিনি বলেন, সালমান শাহের পুরোনো সিনেমার দর্শক এতো! এখনো তার জনপ্রিয়তা কমেনি। হলে গিয়ে দেখেছি নানা বয়সের দর্শকের ভিড়। আমাদের নতুন ছবিগুলো যদি এমন ব্যবসা করতো তাও হলগুলো ঠিক মতো চলতো। আমি মনে করি শুধু একটি হলে নয়, প্রতিবছর সারাদেশের হলগুলোতে সালমান শাহ উৎসব করা উচিত। মন্দার বাজারে হল মালিকরা হয়তো ভালো একটি সপ্তাহ উপহার পাবে।’

ঢুলি কমিউনিকেশনস আয়োজিত ও টিএম ফিল্মস নিবেদিত প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই উৎসবের প্রথম দিন থেকেই দর্শকদের উপচেপড়া ভিড় ছিল মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে। শুধু রাজধানী নয়, দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকেও সালমানভক্তরা ছুটে এসেছেন বড় পর্দায় অমর নায়কের সিনেমা দেখার জন্য।

ঢুলি কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদ মানজুর বলেন বলেন, ‘ধন্যবাদ জানাতে চাই টিএম ফিল্মস, মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহ, গান বাংলা ও মিডিয়াকর্মীদের। যাদের সহযোগিতা ও সমর্থন ছাড়া এত বড় উৎসব সফল করা সম্ভব হতো না। আমরা স্বপ্ন দেখি সালমান শাহের ৫০তম জন্মবার্ষিকী দেশজুড়ে আরও বর্ণিল আয়োজনে করার। সেই প্রস্তুতি আমরা এর মধ্যে শুরু করেছি।’

ঢুলি কমিউনিকেশনসের পক্ষ থেকে সালমান ভক্তদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন অন্য তিন সদস্য নিপু বড়ুয়া, রুদ্র মাহফুজ ও নাজমুল আলম রানা।

আরএম-১২/০৩/১০ (বিনোদন ডেস্ক, তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ)