বর্ষা আনতে লাখ টাকা খরচ

প্রকাশিতঃ মে ২৫, ২০১৮ আপডেটঃ ১২:২৮ অপরাহ্ন

খরা কাটানোর প্রস্তুতিটা আগেই সেরে নিচ্ছে ভারতের গুজরাট। দেশের উত্তরভাগে যেভাবে ঝড়বৃষ্টি চলছে তার কণামাত্র পৌঁছয় পশ্চিমের গুজরাটে। সূর্যের গনগনে তাপে পারদ চড়ছে তরতরিয়ে। রাজ্যের জলাধারগুলির জলও কমতে শুরু করছে।

এই পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে উপায় খুঁজছে গুজরাটের রুপানি সরকার। উপায় বের করেছেন বটে। সেটাকে আধ্যাত্মিক বলাই ভাল। মন্ত্রিসভার বৈঠকে নাকি ঠিক হয়েছে বৃষ্টির দেবতা ইন্দ্রকে তুষ্ট করতে ৪১টি প্রজন্য যজ্ঞ করবে সরকার।

রাজ্যে ৩৩ টি জেলা এবং আটটি গুরুত্বপূর্ণ শহরে ৩১ মে একযোগে হবে যজ্ঞগুলি। প্রায় সবকটিতেই যোগ দেবেন মন্ত্রীরা। এমনকী মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি নিজেও উপস্থিত থাকবেন কোনও না কোনও যজ্ঞে। মোদির রাজ্যে ভাল বর্ষা আনার এই পরিমাণ উদ্যোগ সত্যিই নজির গড়বে দেশে।

আরও খবর : নীল হয়ে যাচ্ছে কুকুর নদীতে নামলেই! (ভিডিও)

‌২০৮টি জলাধার রয়েছে গুজরাটে। তার অধিকাংশের জলই তলানিতে এসে ঠেকেছে। যে পরিমাণ পানি রয়েছে তাতে চাষাবাদ ভালো করে করা সম্ভব নয়। সেজন্য আগামী ১ মাস ধরে রাজ্যে সমস্ত নদী, নালা, খাল, বিল, জলাধার ড্রেজিংয়ের কাজ শুরু করেছে রূপানি সরকার।

ভাল বর্ষা হলে এগুলিতে বেশি পরিমান পানি ধরে রাখা যাবে। এই আশাতেই ভরা গরমে নদী–নালা খুঁড়ে দক্ষ যজ্ঞ কাণ্ড ঘটাচ্ছেন বিজয় রুপানি। এই উদ্যোগ গত বছর নিলে হয়তে এবছর অনেকটাই সামলে নিতে পারতেন কৃষকরা।

দেরীতে হলেও বোধদয় তো হয়েছে। কিন্তু ইন্দ্রের কৃপায় কতটা বর্ষা হবে গুজরাটে তা জানা নেই। তবে আবহাওয়া দপ্তর আশার কথাই শুনিয়েছে। এবার নাকি ভালই বৃষ্টি হবে দেশে।

এসএইচ-১৫/২৫/০৫ (অনলাইন ডেস্ক)