পোড়া রুটি খেতে দেয়ায় স্ত্রীকে তালাক!

প্রকাশিতঃ জুলাই ১১, ২০১৮ আপডেটঃ ৭:১৩ অপরাহ্ন

বিয়ে হয়েছে গত বছর। ২৪ বছর বয়সী ওই নারী রান্না-বান্না করায় তেমন পটু নয়। প্রায়ই রান্না করতে গিয়ে বার বারই রুটি পুড়িয়ে ফেলতেন ওই গৃহবধূ। এর পাশাপাশি বাড়ির অন্যান্য কাজকর্ম না পারায়ও খোঁটা তাকে শুনতে হতো।

একই ভাবেই শনিবারও রুটি বানাতে গিয়ে পুড়ে যায় তার। ব্যস, এতেই যা ঘটল ওই নারীর জীবনে তা শুনে যে কারো গাঁয়ের লোম খারা হয়ে যাবে।

ওই গৃহবধূর অভিযোগ, এই অপরাধে তাকে মারধর করেন তার স্বামী। এখানেই শেষ নয়, এমনকি নারীর গোটা শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকাও দেয়া হয়। একটানা প্রায় তিনদিন ধরে গৃহবধূকে দফায় দফায় নানাভাবে অত্যাচার করা হয়। গৃহবধূর স্বামী, শুধু অত্যাচারেই ক্ষান্ত হননি। স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত পর্যন্ত নেয় সে। শেষমেশ স্ত্রীকে তিন তালাক দেয় ওই নারীর স্বামী।

এমনকি তাকে শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য চাপ দেয়া হতে থাকে ওই গৃহবধূকে। স্বামীর অমানবিক অত্যাচারের সময় শ্বশুরবাড়ির কাউকেই তার পাশে পাননি বলেও অভিযোগ করেন ওই নির্যাতিতা নারী।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মাহোবা জেলার পাহরেটা গ্রামে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে। ওই মহিলা গত বছরই বিয়ে করে এই গ্রামে আসেন।

আরও খবর : রেলের ভাঙা অংশ কাপড় বেঁধে মেরামতের চেষ্টা!

স্বামীর অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে মরিয়া হয়ে ওঠেন ওই গৃহবধূ। কোনো উপায় না দেখে শেষ পর্যন্ত শ্বশুরবাড়ির লোকজনের চোখ এড়িয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন নির্যাতিতা নারী। স্বামীর বিরুদ্ধে তিন তালাক দেওয়ার অভিযোগ দায়ের করেন গৃহবধূ। এসময় প্রমাণ হিসেবে সারা শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকার চিহ্নও পুলিশকে দেখান ওই গৃহবধূ। এরপরই গোটা ঘটনা জানাজানি হয়।

এ বিষয়ে এএসপি বংশরাজ যাদব বলেন, ‘ওই নারী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ থানায় অভিযোগ করার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন ওই নারীর স্বামী। খুব শীঘ্রই অভিযুক্তকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

প্রসঙ্গত, এর আগে উত্তরপ্রদেশের রামপুরে আজিমনগরেও বিনা কারণে তিন তালাকের শিকার হন এক নারী। বিয়ের পর থেকে নারীর উপর চরম মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করত তার স্বামী। মাস ৬ পরে অত্যাচারের পর একদিন ঘুম থেকে উঠতে দেরি হওয়ায় স্ত্রীকে তালাক দেয় তার স্বামী।

এসএইচ-২৭/১১/০৭ (অনলাইন ডেস্ক)