ভারতে মণ্ডপে আজান!

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৭, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:৫৮ অপরাহ্ন

ভারতের পশ্চিম বাংলায় এবার পুজোর থিম, ‘আমরা এক, একা নই।’ আর তা তুলে ধরতেই দুর্গা ম-পের পরিকল্পনায় মন্দির-মসজিদ-গির্জা’র স্থান। পাশাপাশি হিন্দু মন্ত্র উচ্চারণের সঙ্গেই ম-পে চলল ‘আজান’ ও ‘প্রেয়ার’। আর এখানেই ডেকে আনা হল বিপত্তি! দুর্গা ম-পে আজান চালানো হয়েছে, এই অভিযোগ ভাইরাল হতেই হইচই। এমনকী থানায় পুজো উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পর্যন্ত দায়ের হয়েছে।

বেলেঘাটা ৩৩ পল্লিবাসী বৃন্দ-র এই ‘ধর্মনিরপেক্ষ’ থিম নিয়ে তীব্র আপত্তি তুলেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল ম-পে আজানের ভিডিয়ো। আর তা ভাইরাল হতেই ক্লাব কর্তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। বেলেঘাটা ৩৩ পল্লি ক্লাবের মোট ১০ জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন আইনজীবী শান্তনু সিংহ। বয়ানে ‘বিশ্ব হিন্দু পরিষদ’ থেকে প্রাপ্ত ভিডিয়োয় দুর্গাম-পে আজান দেখে আমার ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত পেয়েছে’ বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, ‘ দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বেলেঘাটা ৩৩ পল্লিবাসী বৃন্দ তরফে জানানো হয়েছে, ‘এই নিয়ে অকারণে রাজনীতি করা হচ্ছে। সামাজিক বার্তার উদ্দেশ্যেই এই থিম ভাবা হয়েছিল।

আমাদের থিম, ‘আমরা এক, একা নই।’ আর তা বোঝাতেই গির্জা, মসজিদের প্রতীকও ব্যবহার করা হয়েছে। দর্শনার্থীদের থিম সম্পর্কে জানাতে ম-পে একটি ভিডিও চালানো হচ্ছে। তবে কিছু মানুষ খ্রিস্টানদের উদ্দেশে বার্তা উপেক্ষা করে, কেবল ঊর্দুতে দেওয়া বার্তা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করছে। দুর্গাপুজোয় আজান বাজানোর দাবি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভ্রান্ত।’

গোটা বিষয়ে মুখ খোলেননি পুলিশকর্তারা। এখনও কোনও গ্রেফতারিও হয়নি। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই ভিডিও ব্যবহার করে সম্প্রীতি নষ্টের চেষ্টার আশঙ্কা রয়েছে। তাই সেদিকে নজর রাখছে কলকাতা পুলিশের সাইবার সেল।

এসএইচ-১৮/০৭/১৯ (অনলাইন ডেস্ক)