সন্ধান মিলল সাড়ে ৫ হাজার বছরের পুরনো শহরের

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৮, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:৩৩ অপরাহ্ন

সাড়ে পাঁচ হাজার বছরের পুরনো এক বিশাল শহরের সন্ধান মিলেছে ইসরায়েলে। শহরটির আয়তন সাড়ে ৬ লাখ বর্গমিটার। আছে একটি মন্দিরও। ইসরেয়েলের নতুন শহর হারিশের নিকটবর্তী শ্যারন অঞ্চলে রাস্তা নির্মাণের কাজ চালানোর সময় প্রচীন শহরটির সন্ধান মেলে।

দেশটির স্থানীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইসরায়েল এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইসরায়েলের পুরাকীর্তি কর্তৃপক্ষ এ খবর জানিয়েছে। দেশটির প্রত্নতত্ত্ববিদরা জানান, ব্রোঞ্জ যুগের গোড়ার দিকে খ্রিষ্টপূর্ব চতুর্থ সহস্রাব্দের শেষ পর্যায়ে গড়ে ওঠে পরিকল্পিত এই শহরটি।

ইসরায়েলের পুরাকীর্তি কর্তৃপক্ষের পরিচালক ড. ইৎসহাক প্যাজ জানান, ইসরায়েলের ভূমির মধ্যে যে কোনো প্রাচীন শহরের চেয়ে এটির সীমানা বড়। এমনকি ইসরায়েলের বাইরে জর্ডান, লেবানন ও দক্ষিণ সিরিয়া অঞ্চলের মধ্যেও সন্ধান মেলা নতুন শহরটি সবচেয়ে বড় পুরাকীর্তিস্থল।

শহরটির চারপাশ দুর্গ ও প্রাচীর দিয়ে ঘেরা ছিল। শহরে ছিল ছিল আবাসিক এলাকা, সাধারণ এলাকা, সড়ক ও গলি। সন্ধান মেলা প্রাচীন এ শহরে ৬ হাজারের মতো বাসিন্দা ছিল। তারা কৃষিকাজ এবং সেখানের বিভিন্ন অঞ্চল ও রাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্যের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করতো।

এ ছাড়া শহরে একটি মন্দিরও পাওয়া গেছে। এর চত্ত্বরে মিলেছে বিশাল পাথরের একটি পাত্র এবং দূর্লভ কিছু মূর্তি। পাত্রটিতে ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের পানীয় রাখা হত বলে ধারণা করছেন প্রত্নতত্ত্ববিদরা। মন্দিরের ভেতরে প্রাণীর পোড়া হাড়ের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। যা প্রাণী বলির প্রমাণ বহন করে।

খননকাজের সময় সেখানে ক্যালকোলিথিক যুগে তৈরি হওয়া সাত হাজার বছরের পুরনো একটি আবাসস্থলের সন্ধান মিলেছে। খননে মাটির পাত্রের লাখো টুকরো, পাথরের সরঞ্জাম ও আগ্নেয় শিলা উদ্ধার করা হয়েছে।

গত আড়াই বছর ধরে ইসরাইলের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধায়নে শহরটিতে খননকাজ চালানো হয়। এ কাজে অংশ নেয় ৫ হাজার জনের বিভিন্ন স্কুল শিক্ষার্থী ও স্বেচ্ছাসেবকদের দল। এখনও খনন কাজ চলছে।

এসএইচ-১১/০৮/১৯ (অনলাইন ডেস্ক)