সন্তান প্রসবের সময় কুকুরকে পুড়িয়ে হত্যা

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৬, ২০১৯ আপডেটঃ ১:৪৫ অপরাহ্ন

বাড়িতে ঢুকে উৎপাত করত। সেই অপরাধে সন্তান প্রসবের সময় একটি কুকুরের শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। এতে মায়ের পেট থেকে বেরিয়েই তিনটি কুকুরছানা জীবন্ত অবস্থায় দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। সে সময় ওই মা কুকুরের পেটে আরও একটি বাচ্চা ছিল।

দগ্ধ হয়ে মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে কুকুরটি। খবর পেয়ে পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা গিয়ে চিকিৎসা শুরু করেন। কিন্তু, তাকে আর বাঁচানো যায়নি। এমন অমানবিক ঘটনা ঘটেছে ভারতের বর্ধমানের গোদা এলাকার খন্দকার পাড়ায়।

মঙ্গলবার স্থানীয় পশুপ্রেমী সংগঠনের তরফ থেকে এ বিষয়ে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বর্ধমান পশু হাসপাতালে কুকুরটির ময়নাতদন্তও করা হয়েছে। এই ঘটনায় আসিয়া বিবি নামে এক নারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা নিয়ে বিতর্ক শুরু হওয়ার পরেই এলাকা থেকে পালিয়েছেন ওই নারী।

প্রসবের সময়ে কুকুর ও তার সদ্যোজাত সন্তানদের এভাবে জীবন্ত দগ্ধ করার ঘটনা কোনও মানুষ ঘটাতে পারে এমনটা ভাবাই যায় না। স্থানীয় পশু প্রেমী সংগঠনের তরফ থেকে অর্ণব দাস পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। তিনি জানিয়েছেন, ওই এলাকার বাসিন্দাদের মাধ্যমেই এই নৃশংস ঘটনার খবর পান তিনি। গত রোববার বিকেলে আসিয়া বিবি নামের এক নারী গর্ভবতী কুকুরটির গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন।

পরে খবর পেয়ে পশুপ্রেমী সংগঠনের কয়েকজন সদস্য ঘটনাস্থলে যান। সেখানে গিয়ে দেখেন তিনটি কুকুর ছানা পুড়ে গেছে। আর মা কুকুরটি দগ্ধ অবস্থায় ছটফট করছে। তারা চিকিৎসা শুরু করলেও কুকুরটিকে বাঁচনো যায়নি। সোমবার বিকেলে কুকুরটি মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার মৃত কুকুরটিকে নিয়ে থানায় যান তারা। পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।

এসএইচ-০২/০৬/১৯ (অনলা্ইন ডেস্ক)