মাস্ক চুরি করে ধরা যুবক

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২০ আপডেটঃ ৪:২১ অপরাহ্ন

করোনাভাইরাস ঠেকাতে এখনও মানুষের কাছে সবচেয়ে বড় অস্ত্র হয়ে আছে মাস্ক। আর হুট করে এই মাস্কের চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে অনেক দেশেই দেখা দিয়েছে তীব্র মাস্ক সঙ্কট। এমন পরিস্থিতিতে চীনের মূল ভূখণ্ডে তো মাস্ক চুরির প্রবণতা বেড়েছেই, এ প্রবণতা বেড়েছে হংকংয়েও।

চীনের মূল ভূখণ্ডের পাশাপাশি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে হংকংয়েও। লাশের মিছিল বড়ই হচ্ছে প্রতিদিন। আতঙ্কে মানুষ রাস্তাঘাটে, দোকানপাটে কম বের হচ্ছেন। তবে প্রত্যেকেরই মুখে রয়েছে সার্জিক্যাল মাস্ক। ভাইরাস প্রতিরোধ করার হাতিয়ার নেই, তাই মাস্কই সম্বল। সেই মাস্কেই পড়েছে আকাল।

মাস্কের জন্য হংকংয়ে গাড়ির কাঁচ ভেঙে আট বাক্স এন৯৫ সার্জিক্যাল মাস্ক চুরি করে কারাগারে গেল এক যুবক। জানা গিয়েছে, সান সিং এভেনিউয়ে রাস্তার ধারে একটি ব্যক্তিগত গাড়ি পার্ক করা ছিল। সেই গাড়ির মধ্যেই ছিল ১৬০টি মাস্ক। সেটি চুরি করতে ওই গাড়ির কাঁচ ভাঙেন ওই যুবক।

চীনের বিভিন্ন প্রদেশেই মাস্ক চুরির ঘটনা ঘটছে। মাস্ক ছাড়া রাস্তায় কেউই বের হচ্ছেন না। অবস্থা এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে, মাস্কের জন্য মানুষ অপরাধমূলক কাজকর্ম থেকে পিছু হঠছে না। এ প্রসঙ্গে হংকং পুলিশ একটি টুইটও করেছে সেখানে লেখা হয়েছে- সার্জিক্যাল মাস্ক সঙ্গে রাখুন, কিন্তু চোরদের থেকে সাবধান। নিজেদের জিনিস নিজেরাই সামলে রাখুন।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী করোনাভাইরাসের কারণে কভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ১৪৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত হংকং, ফিলিপাইন ও জাপানে তিনজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যক করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে জাপানের ইয়োকোহামা বন্দরে নোঙর করা ডায়মন্ড প্রিন্সেস নামক প্রমোদতরীতে। বিলাসবহুল ওই নৌযান তিন হাজার ৭০০ যাত্রী নিয়ে এখন কোয়ারেন্টাইনে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সেখানে থাকা ১৭৫ জনকে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে।

এসএইচ-১৪/১৪/২০ (অনলাইন ডেস্ক)