পুলিশের গাড়িতেই সন্তান প্রসব (ভিডিও)

প্রকাশিতঃ মার্চ ২৬, ২০২০ আপডেটঃ ১:৫১ অপরাহ্ন

করোনাভাইরাসের কারণে মানবজাতি আজ হুমকির মুখে। বিশ্বজুড়ে মহামারি আকারে ছড়ানো করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সরকারগুলো তাদের চেষ্টা আরও জোরদার করেছে। এর অংশ হিসেবে টানা ২১ দিনের লকডাউনে পুরো ভারত। এরফলে স্বাভাবিকভাবেই দেশটির জনগণের জীবনযাপনে ব্যাপক প্রভাপ পড়তে শুরু করেছে। লকডাউনের কারণে অ্যাম্বুল্যান্সও পাওয়া যাচ্ছে না ঠিকমতো। এমনই এক সংকটে পড়ে পুলিশভ্যানেই সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক মা।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়েছে, বুধবার সকাল থেকেই স্ত্রী জ্যোতিদেবী প্রসব বেদনায় কাতরাচ্ছিলেন। স্ত্রীকে নিয়ে কীভাবে হাসপাতাল যাবেন, কিছুতেই ভেবে উঠতে পারছিলেন না সুরেন্দ্র গুপ্ত। কয়েকদিন ঘরে বসে থাকার কারণে হাতে টাকাপয়সা প্রায় নেই বললেই চলে। তার উপর করোনা আতঙ্কের মধ্যে কারো সাহায্য পাওয়ার সম্ভাবনাও নেই বলেই চলে।

ট্রেন বন্ধ, প্রাইভেট গাড়িতে করে স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সাধ্য নেই। সকাল থেকে তিনি অ্যাম্বুল্যান্সের জন্য পায়ে হেঁটে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরেছেন। কিন্তু, কোন লাভ হয়নি। শেষমেশ সোনারপুর স্টেশনের কাছে গিয়ে এক প্রকার হতাশ হয়ে বড় রাস্তার উপর দাঁড়িয়ে ছিলেন স্থানীয় সুকান্ত সরণির বাসিন্দা সুরেন্দ্র।

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বন্ধ স্টেশন এলাকার ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন সোনারপুর থানার আইসি সঞ্জীব চক্রবর্তী। হতাশ এবং উদভ্রান্ত সুরেন্দ্রকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে তিনি গাড়ি থামান। জানতে চান কী হয়েছে? সুরেন্দ্র তখন তাকে ঘটনা খুলে বলেন।

এর পর সঞ্জীব নিজের গাড়িতে তুলে নেন সুরেন্দ্রকে। চলে যান সুকান্ত সরণিতে সুরেন্দ্রর বাড়িতে। কাতরাতে থাকা সুরেন্দ্রর স্ত্রীকে তার দুই প্রতিবেশীর সাহায্যে নিজের গাড়িতে তোলেন আইসি। রওনা দেন সোনারপুর গ্রামীণ হাসপাতালে উদ্দেশে। কিন্তু, মাঝপথে গাড়িতেই কন্যা সন্তানের জন্ম দেন জ্যোতিদেবী।

সঞ্জীব জানিয়েছেন, মা এবং সদ্যোজাত দু’জনেই হাসপাতালে ভর্তি, তবে সুস্থ আছেন বলেও জানান তিনি।

এসএইচ-১৭/২৬/২০ (অনলাইন ডেস্ক)