রানির শোকের দিনেও জনসনের অফিসে মদের আসর

ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী প্রিন্স ফিলিপের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আগের রাতে দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে দুটি মদের পার্টি চলছিল।

দ্য টেলিগ্রাফের খবর বলছে, ২০২১ সালের ১৬ এপ্রিল এই পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল।

জাতীয় শোক চলার সময় এভাবে মদ পার্টির আয়োজনের জন্য প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের মুখপাত্র ক্ষমা চাওয়ার কথা জানিয়েছেন। যদিও জনসন ওই পার্টিতে ছিলেন না, তবে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে কোভিড নীতিমালা লঙ্ঘনের জন্য তিনি প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন।

এই খবর প্রকাশের পর দেশটিতে সমালোচনার ঝড় বইছে। করোনা বিধিনিষেধের কারণে ডিউক অব এডিনবার্গের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় রানি এলিজাবেথকে একাকী বসে থাকতে দেখা গেছে। অথচ তখন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চলছে মদের আসর।

২০২০ সালে লকডাউনের মধ্যে মদপানের পার্টিতে উপস্থিত থাকা নিয়ে সমালোচনার মুখে জনসন ক্ষমা চাওয়ার পরই আগুনে ঘি ঢালার মতো সামনে এসেছে এ পার্টি কেলেঙ্কারির ঘটনা।

ওই সময়ও বদ্ধ জায়গায় জনসমাগমের ওপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে চলছিল জাতীয় শোক এবং পরেরদিন (১৭ এপ্রিল) ছিল তার শেষকৃত্য।

দ্য টেলিগ্রাফ জানায়, ডাউনিং স্ট্রিটের কর্মীরা কাছের একটি সুপারমার্কেট থেকে কাাঁড়ি কাঁড়ি মদ কিনে আনেন। তারা নেচে-গেয়ে মদের আসর জমিয়ে তোলেন। লেবার নেতা কির স্টারমার বলেছেন, এতেই বোঝা যায়, বরিস জনসন কতটা গুরুতরভাবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অবমাননা করেছেন।

এসএইচ-২৭/১৪/২২ (অনলাইন ডেস্ক)

Exit mobile version