বুধবার দিল্লিতে মোদি-মমতা সাক্ষাত

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯ আপডেটঃ ৯:০৭ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে দেখা করতে চান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। মোদির সাথে দেখা করতে মঙ্গরবার দিল্লি যাচ্ছেন মমতা। বুধবার দিল্লিতে মোদির সাথে মমতার সাক্ষাতের কথা রয়েছে। সোমবার রাজ্য সরকারের সচিবালয় ‘নবান্ন’ থেকে এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেন জানান ‘প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের জন্য গত সপ্তাহেই মুখ্যমন্ত্রীর অফিস থেকে প্রধানমন্ত্রীর সময় চেয়ে তার অফিসে চিঠি পাঠানো হয়। আগামী বুধবার দিল্লিতে সেই বৈঠক হবে।’

সূত্রে খবর রাজ্যের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক, প্রশাসনিক কাজকর্ম নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনার জন্য দিল্লিতে যেতে চাইছেন মমতা। তাছাড়া তৃণমূলের সংসদীয় দলের সাথেও বৈঠক করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি অন্য বিরোধী দলের নেতাদের সাথেও দেখা করতে পারেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান।

মোদি-মমতার এই বৈঠক এমন একটা সময় হতে চলেছে যখন সারদা চিটফান্ড কেলেঙ্কারির মামলায় কলকাতা পুলিশের সাবেক পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে জেরা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। যদিও একের পর এক সমন পাঠিয়েও রাজীব কুমারের হদিশ এখনও পায়নি সিবিআই। সেদিন থেকে মোদি-মমতা সাক্ষাত অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

তাছাড়াও লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকেই একাধিকবার মোদির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মমতা। বাংলায় নির্বাচনী প্রচারে এসে মমতাকে নিশানা করতে ছাড়েননি মোদিও। মোদি-মমতার বাগযুদ্ধে সরগরম হয়ে উঠেছিল রাজ্যের নির্বাচনী প্রচার। তেমন এক পরিস্থিতিতে এই দুই নেতা-নেত্রীর মুখোমুখি হওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

স্বাভাবিক ভাবেই প্রধানমন্ত্রীর সাথে মমতার সাক্ষাত নিয়ে তাকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি। বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা বলেন ‘আমরা সকলেই জানি যে লোকসভার নির্বাচন ও পরবর্তী সময়ে তিনি (মমতা) প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে কি ধরনের ভাষা প্রয়োগ করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর প্রতি তার কোন শ্রদ্ধা নেই এমনকি মোদিকি’কে তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসাবেও মেনে নিতে চাননি।’

তিনি আরও বলেন ‘মুখ্যমন্ত্রীর এই হঠাৎ যাত্রাটা এখন ‘ওপেন সিক্রেট’ হয়ে গেছে। এই ঘটনার মধ্যে দিয়ে তার সুবিধাবাদী রাজনীতির ছবিটাও ফের একবার সামনে চলে এসেছে কারণ তার কার্যসিদ্ধি হয়ে গেলেই আগের সবকিছু ভুলে যাবেন।’

রাহুল সিনহার অভিমত ‘এটা নিশ্চিত যে মমতা হয়তো তার নিজের ও দলের নেতাদের যাতে সিবিআই স্পর্শ না করে-সেই আর্জি জানাতেই দিল্লিতে যাচ্ছেন। কিন্তু তাতে কোন কাজ হবে না। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের দল কোনভাবেই প্রশয় দেবে না।’

এসএইচ-২২/১৭/১৯ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)