অব্যাহত থাকবে আজাদি মার্চ

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৪, ২০১৯ আপডেটঃ ১১:২৪ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগ এবং পুনরায় নির্বাচন দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের বিরোধী নেতারা। সোমবার রাতে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমানের বাসভবনে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে এ সিদ্ধান্তে উপনীত হন তারা।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডন জানিয়েছে, সোমবার সন্ধ্যায় পরবর্তী করণীয় নিয়ে আলোচনায় বসে পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ ও পাকিস্তান পিপলস পার্টিসহ বিরোধী দলগুলো। এতে অবস্থান কর্মসূচি চালু রাখার কথা জানান তারা।

সর্বদলীয় বৈঠক শেষে জমিয়তের সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল গফুর হায়দারি সাংবাদিকদের বলেন, অবস্থানের ব্যাপারে উপস্থিত ৯টি দলের সবাই একমত হয়েছেন। সরকারের মধ্যস্থতাকারী কমিটি আলোচনা করতে চাচ্ছে, আমরা জানিয়ে দিয়েছি কিছু পাওয়ার ভিত্তিতেই আমরা এ কর্মসূচি সমাপ্ত করব। এর জন্য ৪ মাস থাকতে হলেও আমরা থাকব।

মাওলানা ফজলুর রহমানের বাসভবনে অনুষ্ঠিত সর্বদলীয় সভায় মুসলিম লীগ-(নওয়াজ) প্রধান শাহবাজ শরীফ ও পাকিস্তান পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি উপস্থিত ছিলেন না। তবে তাদের পক্ষ থেকে দলের সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পরে অবস্থানের পঞ্চম দিনের জনসভায় মাওলানা ফজলুর রহমান বলেন, ইমরান সরকারকে এতদিন আমরা ‘সিলেক্টেড’ বলতাম। কিন্তু আজ থেকে এ সরকারকে ‘রিজেক্টেড’ ঘোষণা করা হল। লাখো জনতার এ অবস্থান শুধু একটি জিনিসের মাধ্যমেই শেষ হবে, তা হল এই অবৈধ সরকারের পদত্যাগ।

তিনি বলেন, আমাদের দাবি মেনে না নেয়া পর্যন্ত আমরা সরবো না। এই জনসমুদ্র এখানেই থেমে যাবে না। সরকারের পদত্যাগ ছাড়া আমরা কিছুতেই ফিরে যাবো না।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে কয়েক লাখ কর্মী-সমর্থক নিয়ে পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে অবস্থান করছেন মাওলানা ফজলুর রহমান।

নির্বাচনে জালিয়াতির মাধ্যমে ক্ষমতায় আসার অভিযোগে ইমরান খানকে অপসারণে কয়েক লাখ সমর্থককে নিয়ে রাজধানী ইসলামাবাদে বিস্তৃত পরিসরে ক্যাম্প করে অবস্থান করছেন এই আলেম রাজনীতিবিদ। তার এ আহ্বানে দেশটির অন্য বিরোধীদলগুলোও অংশ নিয়েছে।

এসএইচ-২৫/০৪/১৯ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)