হাসপাতালে ডোনাল ট্রাম্প!

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১৯, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:০০ অপরাহ্ন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বুকের ব্যথায় ভুগছেন বলে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর তা অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ওয়াশিংটনে অঘোষিত মেডিক্যাল চেকআপ করার পর সোমবার তার বুকের ব্যথায় আক্রান্ত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ে।

হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্টের চিকিৎসক সিন কনলি বলেছেন, শনিবার ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টারে এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে ট্রাম্পের (৭৩) স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও অন্যান্য বিষয় পর্যালোচনা করা হয়েছে।

কনলি বলেন, কিছু গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়লেও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কোনো ধরনের বুকের ব্যথা নেই। তার শরীর পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে জরুরি কিংবা গুরুতর কোনো সমস্যা শনাক্ত হয়নি এবং চিকিৎসাও দেয়া হয়নি। ‘বিশেষ করে তিনি বিশেষায়িত কার্ডিয়াক কিংবা নিউরোলিজিক কোনো পরীক্ষাও করেননি।’

মার্কিন কিছু গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই চেকআপের সময় আগে থেকে নির্ধারিত ছিল না। যে কারণে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে, তিনি বুকের ব্যথায় ভুগছেন। কনলি বলেছেন, সময় সূচির অনিশ্চয়তার কারণে তার এই শরীর চেকআপের বিষয়টি নির্ধারিত ছিল না।

তবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শরীর চেকআপ ‘পরিকল্পিত’ এবং ‘নিয়মমাফিক’ হয়েছে বলে বর্ণনা করেছেন তিনি।

হাসপাতাল সফর ঘিরে রহস্য?

সোমবার মার্কিন প্রভাবশালী দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হঠাৎ হাসপাতালে যাওয়া নিয়ে একটি সম্পাদকীয় প্রকাশ করে। এতে মার্কিন এই প্রেসিডেন্টের হাসপাতালে গিয়ে শরীর চেকআপের কারণ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়।

‘হাসপাতালে ট্রাম্পের রহস্যজনক পরিদর্শন, অনেক প্রশ্ন’ শিরোনামে প্রকাশিত সম্পাদকীয়কে মার্কিন এই দৈনিক বলছে, প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্যের ব্যাপারে জানার অধিকার আছে মার্কিন নাগরিকদের; যদি এটা তার কাজে প্রভাব ফেলে।

ওয়াশিংটন পোস্ট প্রশ্ন তুলে বলেছে, গত ফেব্রুয়ারিতে কি তার মেডিক্যাল চেকআপ করা হয়নি? তার বার্ষিক শরীর চেকআপ কি একটি নির্ধারিত বিষয় নয়? তাহলে কেন তিনি আগের চেকআপগুলোর মতো ঘোষণা না দিয়ে কিংবা পাবলিক সিডিউলের তালিকাভূক্ত না করে শনিবার হাসপাতালে গেলেন?

শরীর চেকআপের একদিন পর রোববার এক টুইট বার্তায় মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট জানান, তিনি বার্ষিক শরীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়েছেন। ‘সবকিছু ভালো আছে।’ টুইটের শেষে তিনি মহান শব্দটি জুড়ে দিয়েছেন।

তিনি আগামী বছর স্বাস্থ্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ করবেন বলে জানান। সূচি অনুযায়ী মার্কিন এই প্রেসিডেন্টের সর্বশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়েছে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে। হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক কনলি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্বাস্থ্য ‘খুব ভালো’ আছে বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন।

জাঙ্ক ফুডের প্রতি ট্রাম্পের বিশেষ টান ও ব্যায়ামের প্রতি অনীহা রয়েছে। যে কারণে এর আগে তার চিকিৎসকরাও বিস্ময় প্রকাশ করেছিলেন। ওই সময় তার ওজন ছিল প্রায় ১১০ কেজি।

গত বছর ট্রাম্পের সাবেক প্রধান চিকিত্সক রনি জ্যাকসন হঠাৎ এক সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছিলেন। প্রেসিডেন্টের স্বাস্থ্যের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করে তিনি বলেছিলেন, ট্রাম্পের শরীরে অবিশ্বাস্যরকমের ভালো জিন রয়েছে।

এসএইচ-১২/১৯/১৯ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)