মোদি সরকারকে কোণঠাসা করতে সরব বিরোধীরা (ভিডিও)

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১৯, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:১৪ অপরাহ্ন

শীতকালীন অধিবেশনের প্রথম দিনেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারতের সংসদ। এই অধিবেশনেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। এর আগেই কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে বিজেপি সরকারকে কোণঠাসা করতে একযোগে বিরোধিতায় সরব হয়েছেন বিরোধীরা।

সোমবার অধিবেশন শুরু হয়। এর পরপরই কংগ্রেস, ন্যাশনাল কনফারেন্স ও ডিএমকে ওয়েলে নেমে হইচই শুরু করে। তাদের অভিযোগ, ৩৭০ ধারা বিলোপের পর ১০০ দিন কেটে গেছে, এখনও কাশ্মীর অবরুদ্ধ। এরমধ্যেই অধিবেশন চলাকালীন ওয়াক-আউট করে শিবসেনা।

শীতকালীন অধিবেশনের শুরুতেই বিজেপি সরকারের তীব্র বিরোধিতা করে বিরোধী দলগুলো। কংগ্রেস, তৃণমূল ও শিবসেনা একসঙ্গে সংসদে মুলতবি প্রস্তাব আনে। কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা চেয়ে প্রস্তাব আনে কংগ্রেস। মহারাষ্ট্রে অতিবৃষ্টির জেরে ফসলের ক্ষতি নিয়ে আলোচনা চেয়ে প্রস্তাব আনে শিবসেনা।

কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে আটকে রাখার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিবৃতি চান তৃণমূলের এমপি সৌগত রায়। মহারাষ্ট্রের কৃষক সমস্যা নিয়ে সংসদের বাইরে বিক্ষোভ শুরু করেন শিবসেনার সংসদ সদস্যরা। যদিও লোকসভা স্পিকার ওম বিড়লা মুলতবি প্রস্তাব খারিজ করে দেন।

আসাম থেকে নির্বাচিত কংগ্রেসের সংসদ সদস্য গৌরভ গগৈ সংসদ সংলগ্ন মহাত্মা গান্ধির মূর্তির সামনে দূষণের মাত্রা বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখান।

উল্লেখ্য, আজ থেকে ডিসেম্বর ১৩, মোট ২০টি কার্যদিবসে সংসদের অধিবেশন চলবে। তার মধ্যে অন্তত ৩৫টি বিল পেশ এবং পাস করানোর লক্ষ্য কেন্দ্রের। এই অধিবেশনেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ১৯৫৫ বিলে সংশোধনী আনতে বদ্ধপরিকর কেন্দ্র। যার মাধ্যমে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে ভারতে শরণার্থী হিসেবে আসা হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, পার্সি এবং খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মানুষজনকে ভারতের নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে।

এসএইচ-১৫/১৯/১৯ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)