বিশ্বের ৩৩ দেশে এবার ‘অজানা’ হেপাটাইটিস

করোনা মহামারি পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠার আগেই সম্প্রতি নতুন করে আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করেছে মাঙ্কিপক্স। এর মধ্যেই এবার বিশ্বের ৩৩টি দেশে শনাক্ত হয়েছে ‘অজানা’ হেপাটাইটিস। এ পর্যন্ত ৬৩০ শিশুর দেহে এ রোগটি ধরা পড়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। রোগটি আসলেই হেপাটাইটিস কিনা, তা নিশ্চিতে গবেষণা চলছে বলেও জানায় সংস্থাটি।

গুরুতর ও তীব্র এই ভাইরাসকে কখনো ‘অ্যাকিউট হেপাটাইটিস’, আবার কখনো ‘অজানা হেপাটাইটিস’ বলে ডাকা হচ্ছে। এটি মূলত লিভারের প্রদাহ, যা ধীরে ধীরে লিভারকে অচল করে দিতে পারে। গত ২৩ এপ্রিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রথম ‘অজানা হেপাটাইটিস’ রোগের কথা জানায়।

ডব্লিউএইচও বলছে, গত ৫ এপ্রিল থেকে ২৬ মে পর্যন্ত ৩৩টি দেশে ‘অজানা’ এই হেপাটাইটিসে আক্রান্ত ৬৫০ রোগী শনাক্ত হয়েছে। রোগটি সবচেয়ে বেশি ছড়িয়েছে ইউরোপীয় অঞ্চলে। এ পর্যন্ত ইউরোপের ২২টি দেশে ৩৭৪ জনের শরীরে এ রোগ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে শুধু যুক্তরাজ্যেই শনাক্ত হয়েছে ২২২ জন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বজুড়ে ‘অজানা’ হেপাটাইটিস রোগীর সংখ্যা রহস্যজনকভাবে বাড়ছে। এ পর্যন্ত এ রোগে অন্তত ৯ শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে মার্কিন স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের দাবি, সাম্প্রতিক ‘অজানা’ হেপাটাইটিসের উৎস হতে পারে ‘অ্যাডেনো ভাইরাস’। এটি খুব সাধারণ একটি ভাইরাস, যা শিশুদের মধ্যে প্রায়ই দেখা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) জানায়, নতুন এ রোগ ছড়ানোর পেছনে করোনা সংক্রমণের কোনো ভূমিকা আছে কিনা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এসএইচ-০৭/২৮/২২ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)

Exit mobile version