‘আজাদি মার্চে’ পাকিস্তান সরকারের গচ্চা ১৪৯ মিলিয়ন রুপি

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) ‘আজাদি মার্চ’-এর সময় দেশটির রাজধানীর আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে গিয়ে শাহবাজ সরকারের খরচ হয়েছে ১৪৯ মিলিয়ন রুপি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডনকে জানান, সরকারের কাছে লিখিত অনুরোধ পাঠানোর পর পুলিশের জন্য এই অর্থ ছাড় দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য ডনের পক্ষ থেকে পাকিস্তান পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. আকবর নাসির খানের সঙ্গে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও, কোনো সাড়া দেননি তিনি।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, প্রথমে সম্পূরক অনুদানের জন্য মুখ্য কমিশনারের কার্যালয়ে লিখিত অনুরোধ করা হয়। পরে তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছায়। এরপর তহবিল ছাড়ের জন্য তা পাঠানো হয় অর্থ মন্ত্রণালয়ে।

এর আগে, নানা নাটকীয়তা ও সংঘাতের পর বৃহস্পতিবার (২৬ মে) আজাদি মার্চে দেয়া ভাষণে ৬ দিনের মধ্যে সংসদ ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার জন্য ক্ষমতাসীন জোট সরকারকে আল্টিমেটাম দেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতা ইমরান খান।

হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘যদি এই সময়ের মধ্যে নতুন নির্বাচন ঘোষণা না করা হয় তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পিটিআই আবারও রাজধানী ইসলামাবাদে প্রবেশ করবে।’

জিন্নাহ অ্যাভিনিউতে ‘আজাদি মার্চ’-এ অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশে ভাষণ দেয়ার পর ইসলামাবাদের আবাসিক এলাকা বানি গালায় চলে যান পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান। বলেন, ‘যতদিন সরকার পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের ঘোষণা না দেয়, ততদিন আমি এই রেড জোনে অবস্থান ধর্মঘট করব।’

বুধবার (২৫ মে) রাতে নেতা-কর্মীদের বিশাল এক বহর নিয়ে ইসলামাবাদ প্রবেশ করেন ইমরান। এরপর ডি-চক চত্বরে যাওয়া মিছিলের নেতৃত্ব দেন তিনি। যেখানে গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলো রক্ষায় রেডজোন এলাকায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের অনুমোদন দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

ইসলামাবাদ পুলিশের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানান, পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী বিক্ষোভকারীদের ঠেকানোর চেষ্টা করেছে।

গত ১০ এপ্রিল দেশের পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটে প্রধানমন্ত্রীর পদ হারান ইমরান খান। পার্লামেন্ট থেকেও পদত্যাগ করেন তিনি ও তার দলের সদস্যরা। এরপর থেকেই নতুন নির্বাচন ঘোষণার দাবি জানিয়ে আসছিলেন তিনি। এ দাবি নিয়েই ইমরান খান লংমার্চের ডাক দেন।

গত সোমবার দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনখোয়ার রাজধানী পেশোয়ার থেকে লংমার্চটি ইসলামাবাদ অভিমুখে যাত্রা করে।

এসএইচ-১৮/২৮/২২ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)

Exit mobile version