যৌবন ধরে রাখতে এই ‘সুপারহিরো’কে সঙ্গে রাখুন আপনিও

প্রকাশিতঃ জানুয়ারী ২৩, ২০১৮ আপডেটঃ ৩:৪৬ অপরাহ্ন

শীতকাল এমনিতে বেশ রঙীন। শহরে নানরকম মেলা, নিত্যনতুন খাবার চেখে দেখার সুবিধা। নানরকম গরম পোশাক পরে ফ্যাশনেবল হওয়ার সুযোগ, সবই এই শীতকালে।

তবে এত গুণের মধ্যেও কিন্তু দোষের কমতি নেই। শীতল হাওয়ায় সাধের ত্বকের বারোটা বাজাতে জুড়ি নেই শীতকালের। এই দূষণের বাহুল্যে ত্বককে সজীব ও প্রাণবন্ত রাখাই সব থেকে দুঃসাধ্য ব্যাপার। যাঁরা বাড়িতে থাকেন, তাঁরা টুকিটাকি ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করে নিতে পারেন। তবে যাঁরা নিয়মিত বাইরে যান তাঁদের কাছে ত্বককে বাঁচানোর জন্য একমাত্র ভরসা বাজারচলতি নামীদামি কোম্পানির ক্রিম।

তবে রূপচর্চার একটি গোপন কথা চুপিচুপি আপনাদের জানিয়ে রাখি। ভিটামিন সি-র মধ্যেই লুকিয়ে আছে যৌবনের চাবিকাঠি। মেচেতার দাগে ভরেছে মুখ ? একদম দুশ্চিন্তা করবেন না। হাতের কাছে ভিটামিন সি রাখুন। সময়মতো নির্দেশিকা মেনে ব্যবহার করে নিদাগ ত্বক ফিরে পান।

যাঁরা দৈনন্দিন রূপচর্চা নিয়ে একটু বেশিই সচেতন তাঁদের জন্য এই তথ্য সুখবর বৈকি। সম্প্রতি গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে রূপচর্চার মন্দার বাজারে সুপার হিরো ভিটামিন সি।

এমন কিছু উপাদান রয়েছে ভিটামিন সি-এর মধ্যে যা আপনার ত্বককে যেমন দূষণ থেকে বাঁচাবে। একইভাবে ত্বকের বিভিন্ন জায়গায় ত্বকের জেল্লার যে তারতম্য রয়েছে তাও দূর হবে। কমবে মেচেতার দাগ। আন ইভন স্কিন টোনের সমস্যা, ব্ল্যাক হেডস, হোয়াইট হেডস দূর হবে। দূষণে ত্বকের বিভিন্ন লেয়ারে অনেক ক্ষতি হয়। ভিটামিন সি এই ক্ষতি রোধ করে ত্বককে সজীব করে তোলে। যৌবন যেন মুঠোতে বন্দি হয়।

ত্বকের পরিচর্যায় আপনি বিভিন্নভাবে ভিটামিন সি পেতে পারেন। সোডিয়াম অ্যাসকরবিল ফসফেট, রিটিনল অ্যাসকরবেট, এল-অ্যাসকরবিক অ্যাসিড ও অ্যাসকরবিক পলমিটেড।

তথ্য বলছে এর মধ্যে সব থেকে কার্যকরী হল এল- অ্যাসকরবিক অ্যাসিড। নিয়মিত রূপচর্চা করেও যাঁরা ত্বকের ঔজ্বল্য ফেরাতে পারছেন না তাঁর নিশ্চিন্তে এই উপাদানটির উপরে ভরসা করতে পারেন। এমনটাই বলছেন বিজ্ঞানীরা। শুধু ত্বকের বয়স কমিয়ে দিতেই নয়, ক্ষতিকারক ইউভি রশ্মি থেকেও ত্বককে বাঁচায় ভিটামিন সি। তাই দেরি না করে আজ থেকেই শুরু করুন। দিনে বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে একবার মুখে লাগিয়ে নিন এল- অ্যাসকরবিক অ্যাসিড। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ফের ব্যবহার করুন উপাদানটি। দেখবেন যৌবনের চাবিকাঠি আপনার হাতেই।

আরএম-১৩/২৩-০১ (লাইফস্টাইল ডেস্ক)