পেটে মেদ বাড়ার কারণ ও করণীয়

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ৩, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:২৩ অপরাহ্ন

মানবদেহে সবচেয়ে তাড়াতাড়ি মেদ জমে পেটে। ক্রমেই দেহের বিভিন্ন অংশে মেদ জমতেই থাকে যা থেকে নানা রোগের সৃষ্টি হয়। রক্তচাপ, হার্টের সমস্যা, ডায়াবেটিসের মতো অসুখ এই পেটের মেদ থেকেই দেখা দিতে পারে। অনেকেই ভাবেন, বেশি বেশি খেলেই কেবল পেটে মেদ জমে। আসলে আরো অনেক কারণই আছে। একপলকে দেখে নেওয়া যাক সেই কারণ ও করণীয় সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক-

১. দিনজুড়ে ঘুরতে ফিরতে কিংবা কাজের ফাঁকে কিছু না কিছু খাওয়া হয়েই থাকে। কিন্তু সেই খাবারগুলো মুখরোচক স্ন্যাকস বা জাঙ্ক ফুড হলেই সমস্যা। স্ন্যাকস, ফাস্ট ফুড বা জাঙ্ক ফুড খেতে মজাদার হলেও তা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। এগুলোর বদলে যদি ফলমূল, বিভিন্ন বাদাম বা ফ্রুট সালাদ খাওয়া যায়, তাতে উপকার হবে।

২. নিয়মিত দই খাওয়ার অভ্যাস করুন। দই স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। কারণ এতে ‘গুড ব্যাকটেরিয়া’ থাকে, যা হজমে সাহায্য করে। ফলে পেটে মেদ বাডা়র সুযোগ হয় না।

৩. করনেল ইউনিভার্সিটির বিশেষজ্ঞদের মতে, নেতিবাচক আবেগ কাজ করতে থাকলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা দেখা দেয়। এটা শরীরে পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। তাই মনটাকে ভালো করার চেষ্টা করুন।

৪. পিপাসা পেলে অনেকেই বেভারেজ পান করে। যা মোটেও উচিত নয়। কারণ এতে অত্যাধিক ক্যালোরি রয়েছে যা শরীরে মেদ বাড়িয়ে দেয়। তাই পিপাসা পেলে সফট ড্রিঙ্কস না পান করে বরং মিনারেল ওয়াটার পান করুন।

৫. স্লিম বা রোগা হতে গিয়ে অনেকেই খাওয়াদাওয়া কমিয়ে দেয় বা বাদ দেয়। চিকিৎসকদের মতে, খাবারের পরিমাণ কমালে সমস্যা নেই। কিন্তু, বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলেও পেটে মেদ জমে।

৬. অফিসে বা অন্য কোনো কাজ করার সময় একটানা দীর্ঘসময় বসে থাকলেও পেটের চর্বি বা বেলি ফ্যাট বেড়ে যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতি এক থেকে দেড় ঘণ্টা অন্তর নিজের সিট থেকে উঠে খানিক হাঁটাচলা করা উচিত।

আরএম-১৩/০৩/১০ (লাইফস্টাইল ডেস্ক)