মানবাধিকারে বেসরকারি সংস্থার উদ্বেগ : প্রত্যাখ্যান বাংলাদেশের

২০২১ সালে বাংলাদেশের নিরাপত্তাবাহিনী কর্তৃক বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, নির্যাতন ও গুমের প্রমাণ বিষয়ে জাতিসংঘ, দাতা সংস্থা ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার উদ্বেগ বাংলাদেশ সরকার প্রত্যাখ্যান করেছে৷

২০২১ সালে বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, নির্যাতন ও গুমের প্রমাণ বিষয়ে জাতিসংঘ, দাতা সংস্থা ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার উদ্বেগ বাংলাদেশের শাসক আওয়ামী লীগ সরকার প্রত্যাখ্যান করেছে বলে জানিয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, এইচআরডাব্লিউ৷ বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ‘ওয়ার্ল্ড রিপোর্ট ২০২২’এ এই মন্তব্য করে তারা৷

এইচআরডাব্লিউ বলছে, করোনা মোকাবিলায় সরকারের নেয়া ব্যবস্থার সমালোচনা করায় অ্যাক্টিভিস্ট, সাংবাদিক এমনকি শিশুদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে৷ সংস্থায় এশিয়া পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘‘করোনা মহামারি ব্যবহার করে বাংলাদেশ সরকার এই ভয়ের বার্তা দিয়েছে যে, আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করলে শাস্তি দেয়া হবে৷’’

৭৫২ পাতার ‘ওয়ার্ল্ড রিপোর্ট ২০২২’-এ ১০০টি দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে৷ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক কেনেথ রথ জানান, প্রাণ সংশয় হতে পারে জেনেও একাধিক দেশে প্রতিবাদীরা মানবাধিকারের দাবিতে পথে নেমেছেন৷ এছাড়া বিভিন্ন দেশে একনায়কদের জন্য নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করা কঠিন হয়েছে৷

করোনা মহামারি নিয়ে সরকারের ব্যবস্থার সমালোচনা করে ফেসবুক পোস্ট দেয়ায় লেখক মুশতাক আহমেদকে আটক করা হয়েছিল৷ প্রায় নয় মাস তিনি আটক ছিলেন৷ সেখানে তাকে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ৷ কারাগারেই তার মৃত্যু হয় বলে রিপোর্টে উল্লেখ করেছে এইচআরডাব্লিউ৷

করোনা মোকাবিলায় দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবেদন করায় মে মাসে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আটকের ঘটনাও প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷

এই আইন ব্যবহার করে সরকারের সমালোচকদের আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷ এমনকি বিদেশে বাস করা সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদেরও লক্ষ্য করা হয়েছে৷

গত সেপ্টেম্বরে রোহিঙ্গাদের অধিকার নিয়ে সরব হওয়া কর্মী মুহিবুল্লাহ কক্সবাজারের কুতুপালং শিবিরে অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকবাজের গুলিতে প্রাণ হারান৷ পরের মাস অক্টোবরে শিবিরের এক মাদ্রাসায় হামলায় সাত রোহিঙ্গা শরণার্থী নিহত হন৷

অক্টোবরে বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর সহিংসতার ঘটনা ঘটে৷ এই সময় পুলিশ গুলি চালালে চার জন প্রাণ হারান বলে অভিযোগ৷ এছাড়া ওই সময় আরও তিন জন প্রাণ হারান৷ আহত হন একশোর বেশি মানুষ৷

এসএইচ-০৭/১৪/২২ (অনলাইন ডেস্ক, তথ্যসূত্র : ডয়চে ভেলে)

Exit mobile version