স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে হত্যা, স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিতঃ ডিসেম্বর ৬, ২০১৭ আপডেটঃ ৪:১৭ অপরাহ্ন

পরকীয়ার জেরে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে হত্যার দায়ে এক স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪-এর বিচারক আবদুর রহমান সরকার এ রায় দেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রা্প্ত স্ত্রীর নাম ছালেহা খাতুন শিউলি।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মো. আবদুল কাদের পাটোয়ারী জানান, রায়ের সময় আসামি ছালেহা খাতুন শিউলি আদালতে হাজির ছিলেন। তাঁকে মৃত্যুপরোয়ানাসহ কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, মহসীন তাঁর স্ত্রী ছালেহা খাতুন শিউলি এবং দুই ছেলেকে নিয়ে মিরপুরের পল্লবীতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন। সালেহার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যো প্রায়ই ঝগড়াঝাঁটি হতো। এর জের ধরে ২০১২ সালের ২৬ অক্টোবর দুপুর ১টায় আসামি স্বামীর লিঙ্গ ও অন্ডোকোষ পুরোটাই শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে গলার শ্বাসনালি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কেটে হত্যা করে।

আরও খবর: যেমন কুকুর তেমন মুগুরের ব্যবস্থা নেওয়া হবে: ওবায়দুল কাদের

এ ঘটনায় নিহত মহসীনের ভাই মজনু বাদী হয়ে রাজধানীর পল্লবী থানায় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার পরে পুলিশ সালেহাকে গ্রেপ্তার করলে তিনি ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতের ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পল্লবী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিপ্লব কুমার শীল এ ঘটনায় আসামি শিউলিকে একমাত্র আসামি করে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে অভিযোগপত্র দিলে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বদলী হয়ে আসে। এ আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ মামলার রায় ঘোষণা করা হয় বলে জানান তিনি।

এমও-০৫/০৬-১২ (ন্যাশনাল ডেস্ক,তথ্যসূত্র-এনটিভি অনলাইন)