‘সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার জামায়াতের ১১ নেতা’

প্রকাশিতঃ মার্চ ১২, ২০১৮ আপডেটঃ ৭:১৮ অপরাহ্ন

জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াতের ১১জন নেতাকে রাজশাহী শহরের একটি ঘরোয়া বৈঠক থেকে পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। তারা সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন বলে বিবৃতি দিয়েছে জামায়াত।

সোমবার এক যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি মাওলানা শামসুল ইসলাম এবং দলের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা এটিএম মাছুম এমন মন্তব্য করেন।

জামায়াতের নেতৃদ্বয় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, ১২মার্চ রাজশাহীতে জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াতের ১১ জন নেতাকে পুলিশ পরিকল্পিতভাবে গ্রেফতার করেছে। সরকারের জামায়াতে ইসলামীকে নেতৃত্ব শূন্য করার গভীর ষড়যন্ত্রেরই অংশ এ গ্রেফতার। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

আরও খবর: নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হলো খালেদা জিয়াকে

নেতৃদ্বয় আরো বলেন, জামায়াতে ইসলামী দেশের একটি বৈধ রাজনৈতিক দল। দলটির নেতাদের গ্রেফতার করে সরকার দেশের আইন ও সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। এ থেকেই প্রমাণিত হয় যে, দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন বলতে আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। এভাবে জামায়াতসহ ২০-দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের সরকার গ্রেফতার করে দেশকে রাজনীতি শূন্য করছে।

দেশকে রাজনীতি শূন্য করে সরকার একদলীয়ভাবে নির্বাচনের নাটক কায়েমের ষড়যন্ত্র করছে। জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে দেশে একদলীয় ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েমের পরিণতি কখনো শুভ হবে না। স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য নেতৃদ্বয় দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

নেতৃদ্বয় জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ সারাদেশে জামায়াতের গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীর মুক্তির দাবিতে মঙ্গলবার দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন। ঘোষিত এ বিক্ষোভ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালন করার জন্য নেতৃদ্বয় জামায়াতের সকল শাখা সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানান এবং দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

এমও-১৭/১২-০৩ (ন্যাশনাল ডেস্ক, তথ্যসূত্র: আমাদের সময়)