পাঁচ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৬ জনের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ জুলাই ১১, ২০১৮ আপডেটঃ ৬:৪১ অপরাহ্ন

সারা দেশের পাঁচ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার ভোর পযর্ন্ত এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ঢাকা: কেরানীগঞ্জে ডিবি পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছে। তার নাম নুর ওরফে নুরা (৪৫)। বুধবার ভোরে কেরানীগঞ্জের দেওসুর এলাকায় ডায়মন্ড মেলামাইন কারখানার সামনে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত নুর ওরফে নুরা বাবার নাম মো. নুর ইসলাম।

তার বাড়ি কেরানীগঞ্জ মডেল থানার জিয়ানগর এলাকায়। কেরানীগঞ্জ মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী ফুটু ওরফে মোন্না (৩৫) ও রাসেল আহম্মেদ (৩০) নামের দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। সম্পর্কে তারা মামা ভাগ্নে। র‌্যাবের দাবি এ ঘটনায় তাদের ২ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে।

আরও খবর: ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটায় কোন হস্তক্ষেপ নয়: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

বুধবার ভোর রাতে মিরপুর উপজেলার কূর্শা ইউনিয়নের আনান্দ বাজার বালুচর সংলগ্ন জোয়াদ্দারের ইটভাটার কাছে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মোহাই মিনুল জানান, মাদক দ্রব্য ক্রয় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে একদল মাদক ব্যবসায়ী মিরপুর উপজেলার কূর্শা ইউনিয়নের আনন্দ বাজার বালুচর সংলগ্ন জোয়াদ্দারের ইটভাটার কাছে অবস্থান করছে।

এমন গোপন সংবাদ পেয়ে কুষ্টিয়া র‌্যাব ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবকে লক্ষ্য কর গুলি ছোড়ে। জবাবে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে এক পর্যায়ে দুই জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে তাদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

যশোর: যশোরের মণিরামপুরে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছে। দুই দল ডাকাতের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধে ওই যুবক নিহত হয়েছে বলে দাবি পুলিশের। মণিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোকাররম হোসেন জানান, বুধবার ভোরে যশোর-রাজগঞ্জ সড়কের কোদলাপাড়া জামতলা এলাকার রাস্তার পাশ থেকে ওই যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে খেদাপাড়া ফাড়ির পুলিশ। লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার পরিচয় জানা যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নাটোর: নাটোরের বড়াইগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক যুবক নিহত হয়েছে। তার নাম ওসমান গণি (৩৮)। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে উপজেলার বাহিমালি এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। নিহত ওসমান উপজেলার গুরুমশইল গামের মৃত মনসুর আলীর ছেলে।

র‌্যাবের দাবি, ওসমান গণি একজন মাদক বিক্রেতা। তার বিরুদ্ধে নাটোর জেলার বিভিন্ন থানায় মাদক ও চাঁদাবাজিসহ অন্তত পাঁচটি মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাবের দুই সদস্য আহত হয়েছেন এবং ঘটনাস্থল থেকে বিদেশি পিস্তল, ম্যাগাজিন, হেরোইনসহ মাদক সেবনের সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে বলে র‍্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর: লক্ষীপুর রায়পুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও ২২ মামলার আসামি সোহেল রানা প্রকাশ সুরাইয়া সোহেল নিহত হয়েছে। বুধবার ভোর রাতে উপজেলার সিংয়েরপুল নামক এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের দুই কর্মকর্তা আহত হন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় একটি এলজি, তিন রাউন্ড গুলি ও তিনশ’ পিচ ইয়াবা। নিহত সোহেল উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নের দেনায়েতপুর এলাকার মৃত আবদুল মুনাফের ছেলে। থানা পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে লক্ষ্মীপুর শহরের ঝুমুর সিনেমা হল এলাকা থেকে সোহেল রানাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তার দেয়া তথ্যমতে রায়পুরের চরপাতা ইউনিয়নের সিংয়েরপুল এলাকায় একটি পরিত্যক্ত ঘর থেকে ইয়াবা উদ্ধারে পুলিশ অভিযানে যায়।

উপস্থিতি টের পেয়ে আসামি ছিনিয়ে নিতে তার সহযোগীর পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে সহযোগীদের গুলিতেই সোহেল গুলিবিদ্ধ হন। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এমও-১৩/১১-০৭ (ন্যাশনাল ডেস্ক)