নাটোরে বিয়ের প্রলোভনে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৯ আপডেটঃ ৮:২৯ অপরাহ্ন

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাসুদ রানা (২০) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যায় ছাত্রীর মা মামলা করলে ওই দিন রাতেই উপজেলার সান্যালপাড়া এলাকা থেকে মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মাসুদ রানা উপজেলার ফাগুয়াড়দিয়াড় ইউনিয়নের সান্যালপাড়া গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে।

স্কুলছাত্রীর মায়ের দাবি, মাসুদ রানার ধর্ষণের ফলে আমার মেয়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে আমার মেয়েকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করেছে মাসুদ রানা।

মামলার এজাহারে স্কুলছাত্রীর মা উল্লেখ করেছেন, আমার মেয়ে স্থানীয় একটি স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী। স্কুলে যাওয়া-আসার পথে মেয়েকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় মাসুদ রানা। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে মেয়েকে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে মাসুদ। ১৫ সেপ্টেম্বর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে মাসুদ। ওই সময় ১০ দিনের মধ্যে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয় সে। এরপর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় মাসুদ। পরে বিস্তারিত ঘটনা আমাকে জানায় মেয়ে।

স্কুলছাত্রীর মা বলেন, বর্তমানে আমার মেয়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বিষয়টি পারিবারিকভাবে সমাধানের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু মাসুদ রানা আমার মেয়েকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। তাই বুধবার সন্ধ্যায় মামলা করেছি।

বাগাতিপাড়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম শেখ বলেন, স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে তাকে নাটোর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা এবং জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বিএ-১৮/২৬-০৯ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)