রাজশাহীতে প্রতিপক্ষের হামলায় ১ জনের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ ডিসেম্বর ৭, ২০১৭ আপডেটঃ ৫:৪৫ অপরাহ্ন

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্তের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে তাকে আহত অবস্থায় রামেকে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় নারীসহ আহত হয়েছে আরও ১০ জন । আহতদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আউচপাড়া ইউনিয়নের রক্ষিতপাড়া গ্রামের আলী আকবরের সাথে একই গ্রামের মহাসিন আলীর জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই জমিকে কেন্দ্র করে আলী আকবর বাদী হয়ে রাজশাহী সহকারী জর্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। আদালত কাগজপত্র পর্যালোচনা করে প্রকৃত মালিক আলী আকবরকে জমি বুঝিয়ে দেয়।

মহাসিন আলীর জনসংখ্যা বেশীর কারনে তারা আদালতকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে জমির দখল নিজেদের মধ্যে রাখে। বিষয়টি নিয়ে আলী আকবর এলাকার প্রধান মাতবরদের সহযোগীতা জন্য এগিয়ে গেলে গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে মহাসিন আলীর ছেলে ইসমাইল হোসেন, মোবারক হোসেন, ইউসুফ আলী, ইসরাফিল হোসেন ও বাবুল হোসেন হামলা চালায়। ওই সময় আলী আকবরকে উদ্ধারের জন্য পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে আসলে তাদের হামলায় আলামিন, আব্দুল মতিন, মেহেদী হাসান, চম্পা খাতুন, মিনারা বেগম ও নার্গিস বেগম আহত হয়।

আরও খবর: মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলা

স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভোর রাতে আহত আলী আকবর মৃত্যু বরন করেন। আলী আকবরের মৃত্যু খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে সকালেই বাগমারা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়। নিহত আলী আকবরের পরিবারের দাবী সন্ত্রাসী ষ্টাইলে মহাসিন আলী তার ছেলেদের দিয়ে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালিয়েছে। তারা অবিলম্বে ওই সকল সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম আহম্মেদ বলেন, হত্যার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার পর থেকে সবাই পলাতক থাকায় তাদেরকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। পুলিশ গ্রেপ্তারের জন্য তৎপর রয়েছেন বলে জানান তিনি।

এমও-১১/০৭-১২ (নিজস্ব প্রতিবেদক)