ভাতিজা হত্যার দায়ে চাচির যাবজ্জীবন

প্রকাশিতঃ জুন ২১, ২০১৮ আপডেটঃ ১০:১৭ অপরাহ্ন

কুড়িগ্রামে এক ৪র্থ শ্রেণির এক ছাত্রকে হত্যার দায়ে চাচি বেলী রানী দাসের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আখতার-উল-আলম এ রায় দেন।

নিহতের নাম মহন্ত রবি দাস (১২)। সে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বেলী রানী দাসের সম্পর্কে ভাতিজা। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন এ তথ্য জানিয়েছেন। আসামি বেলী রানী দাসের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দি-পেনাল কোডের-৩০২ ধারায় আদালত এ রায় দেন।

এসময় আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মুহা. ফখরুল ইসলাম এবং রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন।

আরও খবর: মাদকসেবনে বাধা দেয়ায় বাবার হাতে ছেলে খুন!

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ২০ এপ্রিল মহন্ত রবি দাস জেলা শহরের গোরস্থানপাড়ার বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। পরে তার পরিবারের লোকজন জানতে পারে তার কাকী মা (চাচী) বেলী রানী দাস শিশু মহন্তকে সঙ্গ করে নিয়ে গেছে।

কিন্তু সেদিনই রাত ১১টার দিকে বেলী রানী দাস বাড়িতে ফিরে আসলে সে মহন্ত রবি দাসকে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার কথা অস্বীকার করে। পরের দিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পাশের হরিকেশ গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে মহন্ত রবি দাসের লাশ উদ্ধার করা হয়।

সেদিনই বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম সদর থানায় বেলী রানী দাসকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে মহন্ত রবি দাসের বড় ভাই পরেশ রবি দাস। দীর্ঘ চার বছর বিচার কাজ চলার পর বৃহস্পতিবার আদালত এই রায় দেন।

এমও-১১/২১-০৬ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)