রাজশাহীতে ঘুষ নেয়ার সময় হাতেনাতে ধরা সমবায় কর্মকর্তা

প্রকাশিতঃ মে ১৪, ২০১৯ আপডেটঃ ৫:৫৬ অপরাহ্ন

ঘুষ নেয়ার সময় হাতেনাতে ধরা পড়েছেন রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা নৃপেন্দ্রনাথ দাস। মঙ্গলবার দুপুরে ঘুষের টাকাসহ তাকে পাকড়াও করে রাজশাহী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একটি দল।

এনিয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। মামলার বাদী হচ্ছেন দুদকের রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন।

জানা গেছে, ওই সমবায় কর্মকর্তা উপজেলার সরমংলা একতা মৎস্যচাষী সমবায় সমিতির নাম নিবন্ধনে ১৫ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। এরপরই দুদকে অভিযোগ দেন সমিতির সভাপতি আবদুল বাতেন ।

অভিযোগে বাতেন উল্লেখ করেন, দু’দফায় ঘুষের ৭হাজার টাকা নিয়েছেন সমবায় কর্মকর্তা। বাকি ৮ হাজার না পাওয়ায় সমিতির নিববন্ধন দেন নি।

আলমগীর হোসেন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়ে বিশেষ দল গঠন করে দুদক। ওই দলটি হাতেনাতে ওই সমবায় কর্মকর্তাকে ধরতে ফাঁদ পাতে দলটি।

মঙ্গলবার দুপুরে দাবিকৃত ৮ হাজার টাকা নিয়ে সমবায় কর্মকর্তা নৃপেন্দ্রনাথ দাসের কার্যালয়ে যান সরমংলা একতা মৎস্যচাষী সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল বাতেন।

ঘুষের টাকা হাতে নেয়ার সময় দুদকের রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক মুর্শেদ আলম ও উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম নেতৃত্বে একটি দল হাতেনাতে নৃপেন্দ্রনা থকেধরে ফেলেন। তার কাছ থেকে ওই ৮ হাজার টাকাও জব্দ করা হয়।

বিএ-১৪/১৪-০৪ (নিজস্ব প্রতিবেদক)