রাজশাহীতে হত্যার বিচার দাবিতে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও

প্রকাশিতঃ ডিসেম্বর ২, ২০১৯ আপডেটঃ ৯:২৩ অপরাহ্ন

রাজশাহীতে দোকানী রাজন শেখ (৩০) হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও করেছে নিহতের স্বজনরা। সোমবার সকালে নিহতের স্বজনরা নগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও করেন। এই কর্মসূচিতে স্থানীয় বাসিন্দারাও যোগদেন।

বিক্ষোভকারীরা মিছিল নিয়ে আরএমপি কমিশনার হুমায়ুন কবিরের অস্থায়ী কার্যালয় শাহমখদুম থানা কমপ্লেক্সে যান।

কমিশনারের কার্যালয়ের ভেতর ঢোকার চেষ্টা করলে প্রধান ফটকে পুলিশ তাদের আটকে দেয়।

সেখানে অবস্থান নিয়ে হত্যকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত বিচার দাবি করেন।

পরে পুলিশের পক্ষ থেকে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস দেয়া হলে বিক্ষোভকারীরা ফিরে যান।

এর আগে গত ৩০ নভেম্বর নগরীর আসাম কলোনী ঈদগাহ মাঠ এলাকায় বন্ধু সোহেল শেখের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত হন পান-সিগারেটের দোকানী রাজন শেখ।

এ ঘটনায় সোহেল শেখসহ দুইজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন নিহতের পরিবার।

এই মামলায় অজ্ঞাতনামা আরও দুই-তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।

ঘটনার পরই পুলিশ এজাহারনামীয় দুই আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আদালতে তাদের সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা সোহেল শেখের বাবা আরমান শেখ এবং মা শাহানা বেগমেরও বিচার চান।

বিক্ষোভের ব্যানারে এ হত্যাকাণ্ডের আদেশদাতা হিসেবে তাদের নাম লেখা হয়।

রাজনের স্বজনরা জানান, কিছু দিন আগে শাহানা বেগম মাদকসহ ধরা পড়ে তিন মাস জেল খাটেন।

জেল থেকে বেরিয়ে তিনি ঘোষণা দিয়েছিলেন, রাজনই পুলিশে খবর দিয়ে তাকে ধরিয়ে দিয়েছিলেন।

তাকে দেখে নেয়া হবে। এর কয়দিন পরই পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে খুন হন রাজন।

আরএমপির মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, এ মামলায় দুইজন এজাহারভুক্ত আসামি। সবাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তদন্তে অন্য কারও সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

বিক্ষোভ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা কার্যালয়ের সামনে মিনিট দশেক শ্লোগান দিয়ে চলে গেছেন।

পুলিশের তদন্ত যেন ভালভাবে হয়, কেউ যেন আইনের ফাঁক দিয়ে পালাতে না পারেন সে জন্য এই বিক্ষোভ করা হয়েছিল। আমরা মামলাটি গুরুত্ব সহকারেই তদন্ত করছি।

বিএ-১৪/০২-১২ (নিজস্ব প্রতিবেদক)