রাজশাহীতে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় স্কুলছাত্রীর মামাকে হত্যা

প্রকাশিতঃ জানুয়ারী ১৪, ২০২০ আপডেটঃ ১০:২৫ অপরাহ্ন

ভাগনিকে উত্যেক্তর প্রতিবাদ করায় বখাটেদের ধারালো অস্ত্রের কোপে প্রাণ হারিয়েছেন নাজমুল হোসেন (২৮) নামের এক যুবক।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর বাঘা উপজেলার জেলার বাঘা উপজেলার সুলতানপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাজমুল সুলতানপুর গ্রামের আজিজুর রহমান ওরফে তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে।

বখাটেরা কুপিয়ে আহত করেছে ওই ছাত্রীর বাবা ও ভাইকে। তারাও এলাকার বাসিন্দা। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেয়া হয়েছে।

হামলাকারীরা বাঘার সুলতানপুর ও নাটোরের লালপুর উপজেলার মনিহারপুর গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয়রা জানান, খানপুর জেপি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণি পড়ুয়া ওই ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে নানা ভাবে উত্যোক্ত করে আসছিলো পাশ্ববর্তী মনিহারপুরের আরজেদ আলী ওরফে ভোলা প্রামানিকের বখাটে ছেলে সুমন প্রামানিক।

সস্প্রতি ওই ছাত্রীর পরিবার বিষয়টি বখাটে সুমনের পরিবারকে জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ‍ওঠেন সুমন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যায় বখাটে সুমনের নেতৃত্বে সম্রাট, সুলতান, আরিফ, নাজমুল, মিঠু ও কামরুলসহ ১৫-২০ জনের একটি ওই ছাত্রীর বাবার উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

ওই ছাত্রীর বাবাকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে যখম করে বখাটেরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ওই ছাত্রী ভাই ও মামা নাজমুল মোটরসাইকেল যোগে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তাদের উপররেও সশস্ত্র হামলা চালায় বখাটেরা।

আহতদের উদ্ধার করে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেয়া হয়। এসময় সেখানকার দায়িত্বরত চিকিৎসক নাজমুল হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া জড়িতদের ধরতে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এনিয়ে আইনত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

বিএ-১৮/১৪-০১ (নিজস্ব প্রতিবেদক)