ছেলের স্বীকৃতির দাবিতে শ্বশুরবাড়িতে অনশনে প্রবাসী স্ত্রী

প্রকাশিতঃ জুন ২১, ২০১৮ আপডেটঃ ১০:০১ অপরাহ্ন

মাদারীপুরের কালকিনিতে ছেলের স্বীকৃতির দাবিতে গত ৭ দিন ধরে হাসি বেগম (২২) নামে এক জর্দান প্রবাসীর স্ত্রী তার শ্বশুরবাড়িতে অনশন শুরু করেছেন।

ওই গৃহবধূ তার চার মাসের পুত্রসন্তানের বাবার পরিচয় ও স্বামীর স্বীকৃতি না পাওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাবেন বলে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে জানান।

এদিকে অনশনের ঘটনায় তাকে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ নির্যাতনের ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ।

আরও খবর: প্রিয় দলের পতাকায় বিয়ের গেট, তারপর…

বৃহস্পতিবার মামলার বিবরণে জানা গেছে, সিরাজগঞ্জ জেলার বামনগাতী গ্রামের হায়দার আলী শেখের মেয়ে হাসির সঙ্গে কালকিনি পৌর এলাকার দক্ষিণ কৃষ্ণনগর গ্রামের মান্নান মুন্সির ছেলে সাইফুল মুন্সির প্রেমের সূত্র ধরে তিন বছর আগে বিয়ে জর্দানে তাদের বিয়ে হয়।

বিয়ের পরে হাসি বেগম অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে সাইফুল মুন্সি তার স্ত্রী হাসিকে একা দেশে পাঠিয়ে দেন। এরপর চার মাস আগে তাদের একটি পুত্রসন্তান জন্ম নেয়।

খবর শুনে সাইফুল দেশে চলে আসেন। এরপর স্বামী সাইফুল মুন্সি হাসিকে স্ত্রী হিসেবে কোনো স্বীকৃতি না দিয়ে বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করেন। পরে স্ত্রী হাসি বেগম কোনো উপায়ান্তর না পেয়ে স্বামীর স্বীকৃতির দাবিতে শ্বশুরবাড়িতে গত ৭ দিন ধরে অনশন শুরু করেন।

হাসি তার বাড়িতে আসায় স্বামী সাইফুল মুন্সি বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে গেছেন। এ সুযোগে প্রতিনিয়ত হাসি বেগমের শাশুড়ি হামিদা বেগম, শামীম ফকির ও লিপিসহ বেশ কয়েকজন মিলে তাকে বেদম মারধর করছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন।

এ মারধর সহ্য করতে না পেরে হাসি বেগম বাদী হয়ে স্বামী সাইফুল মুন্সিসহ ১১জনের বিরুদ্ধে কালকিনি থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সনজিব বলেন, এ মামলার ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বিএ-১৯/২১-০৬ (আঞ্চলিক ডেস্ক)