ফের চলন্ত বাসে তরুণীকে ধর্ষণ চেষ্টা

প্রকাশিতঃ জুন ১১, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:২১ অপরাহ্ন

সোনারগাঁ থেকে গুলিস্তান চলাচলকারী স্বদেশ পরিবহনের একটি চলন্ত বাসে এক তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার মেঘনা নিউটাউন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় জনতা বাসটির চালককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

পুলিশ বাসটি জব্দ করে থানা হেফাজতে নিয়ে গেছে। অভিযুক্ত চালক শামীম মিয়া উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের নানাখী মধ্যপাড়া গ্রামের আব্দুর রব মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর বাসটির হেলপার পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে ওই তরুণী বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানার মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কিশোরগঞ্জের ওই তরুণী গজারিয়া এলাকায় ডাচ বাংলা প্যাকেজিং নামের একটি ফ্যাক্টরিতে অপারেটর হিসেবে কাজ করেন। তিনি ঈদের ছুটি শেষে কিশোরগঞ্জ থেকে সোমবার রাত ৯টার দিকে গুলিস্তান পৌঁছান। এরপর গজারিয়ায় যাওয়ার জন্য স্বদেশ পরিবহনের ওই বাসে (ঢাকা মেট্টো-ব-১১-৭২৬৫) উঠেন। বাসটি মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় পৌঁছালে সব যাত্রী নেমে যায়।

এ সময় অন্য যাত্রীদের সঙ্গে ওই তরুণী নেমে যেতে চাইলে চালক শামীম তাকে মেঘনা ঘাট নামিয়ে দেওয়ার কথা বলে। এরপর বাসটি আষাঢ়িয়ারচর এলাকায় পৌঁছালে হেলপারকে বাস চালাতে দিয়ে ওই তরুণীকে পেছনে সিটে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় চালক। পথে রাত সাড়ে ১০টার দিকে পিরোজপুর ইউনিয়নের মেঘনা নিউটাউন শপিং কমপ্লেক্সের ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে গাড়ির জন্যে অপেক্ষা করছিলেন।

স্বদেশ পরিবহনের বাসটি দেখে তারা থামাতে বললে সেটি আরো দ্রুতগতিতে চলে যায়। এ সময় বাসটি থেকে ওই তরুণী চিৎকার করতে থাকেন। এরপর স্থানীয় জনতা বাসটি ধাওয়া দিয়ে আটকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে এবং চালক শামীমকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ সময় বাসটির হেলপার পালিয়ে যায়।

সোনারগাঁ থানার এসআই তাওহিদ উল্লাহ জানান, খবর পেয়ে মেঘনা নিউটাউনে গিয়ে চালক ও গাড়িটি আটক করা হয়েছে। সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চালক ও বাসটি আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

বিএ-০৩/১১-০৬ (আঞ্চলিক ডেস্ক)