বরিশালে যুবলীগ নেতার ধর্ষণের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন গৃহবধূ

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৬, ২০১৯ আপডেটঃ ১০:০৮ অপরাহ্ন

বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় চার বছরের শিশুসন্তানকে অপহরণ ও হত্যার হুমকি দিয়ে এক গৃহবধূকে (২৯) ধর্ষণের চেষ্টা চালিয়েছেন স্থানীয় এক যুবলীগ নেতা।

অভিযুক্ত নিখিল চক্রবর্তী (৪০) উপজেলার হারতা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও হারতা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য। যুবলীগ নেতা নিখিল চক্রবর্তীর ভয়ে চার বছরের শিশুসন্তানকে নিয়ে প্রায় তিন মাস আগে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বরিশাল নগরীতে আশ্রয় নিয়েছেন ওই গৃহবধূ।

গৃহবধূ জানান, পাঁচ বছর আগে উপজেলার হারতা ইউনিয়নের কুচিয়ারপাড় গ্রামের এক যুবকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তার স্বামী ঢাকায় ব্যবসা করেন। হারতা বন্দরে বাসা ভাড়া করে সন্তান নিয়ে বসবাস করতেন। সময় সুযোগ হলে বাড়িতে আসতেন স্বামী। চার বছর আগে তার ওপর কুনজর পড়ে যুবলীগ নেতা নিখিল চক্রবর্তীর। তাকে প্রায় কুপ্রস্তাব দিতেন নিখিল। এর ফাঁকে একাধিকবার ধর্ষণের চেষ্টা চালান। ধর্ষণের ব্যর্থ হয়ে শিশুসন্তানকে অপহরণ ও হত্যার হুমকি দেন নিখিল। এ অবস্থায় প্রায় তিন মাস আগে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বরিশাল নগরীতে বোনের বাসায় আশ্রয় নেন গৃহবধূ।

গত ৩০ অক্টোবর গৃহবধূর বোনের ছেলেকে মারধর করে ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেন যুবলীগ নেতা নিখিল। আহত বোনের ছেলে বর্তমানে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গৃহবধূ বলেন, যুবলীগ নেতা নিখিল চক্রবর্তীর অত্যাচারে আমি অতিষ্ঠ। তার হাত থেকে রক্ষা পেতে উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দিয়েছি আমি। কিন্তু তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এখন তার ভয়ে এলাকা ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছি। থানায় এসে অভিযোগ দিতে সাহস পাচ্ছি না। তবে ফোনে থানার ওসিকে বিষয়টি জানিয়েছি আমি।

উজিরপুর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিশির কুমার পাল বলেন, এ ঘটনায় মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। গৃহবধূকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি। তার নিরাপত্তা নিয়ে ভয় নেই। পুলিশই গৃহবধূর নিরাপত্তা দেবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে যুবলীগ নেতা নিখিল চক্রবর্তী বলেন, এসব অভিযোগ সত্য নয়। ওই নারীর অভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমাকে হেয় করার জন্য এ ধরনের নাটক সাজানো হয়েছে।

বিএ-১৭/০৬-১১ (আঞ্চলিক ডেস্ক)