চুরি করেই কোটি কোটি টাকার মালিক

রপ্তানি পণ্য বোঝাই কাভার্ডভ্যান চট্টগ্রাম বন্দরে যাবার পথেই উধাও। সারা দেশে রয়েছে চুরি চক্রের বিশাল সিন্ডিকেট।

কোটি কোটি টাকার মালিক সিলেটি সাঈদসহ ৭ জনকে গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে এসেছে নানা তথ্য। গত কয়েক বছরে চক্রটি ৫ হাজারেরও বেশি চুরির কথা স্বীকার করেছে।

পণ্য বোঝাই কাভার্ডভ্যান। থাকার কথা চট্টগ্রাম বন্দরে, কিন্তু চোর চক্রের খপ্পরে পড়ে এখন গোয়েন্দা হেফাজতে। চুরি হওয়া ৪ হাজার ৭০০ পিস গার্মেন্টস পণ্য ও ২টি কাভার্ডভ্যানসহ চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ যারা দীর্ঘ দিন ধরে রপ্তানি পণ্য চুরির সঙ্গে জড়িত।

মূলহোতা মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সিলেটি সাঈদ। সারা দেশে তার রয়েছে বিশাল চোরাই সিন্ডিকেট। রপ্তানি পণ্য বোঝাই কাভার্ডভ্যান থেকে কয়েকধাপে চুরি করে চক্রটি। পণ্যবোঝাই পরিবহন রওয়ানা হয় চট্টগ্রামের উদ্দেশে। চক্রটি সুকৌশলে কাভার্ডভ্যানটি তাদের নিজস্ব গোডাউনে নিয়ে যায়।

পরে ভ্যান থেকে কার্টন খুলে কিছু পণ্য সরিয়ে ফেলে। কখনো কখনো মহাসড়কের নির্জন কোনো স্থানেই চুরি করা হয় পণ্য। গত কয়েক বছরে এ চক্র ৪ থেকে ৫ হাজারেরও বেশি চুরির কথা স্বীকার করেছে গোয়েন্দাদের কাছে।

চুরির টাকায় দেশে এবং দেশের বাইরে বিপুল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন সাঈদ। তার নামে দেশের বিভিন্ন থানায় মামলা আছে ২৪টি বলে জানান ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার।

মাস দুয়েক আগে ঢাকা-চট্টগ্রাম সড়কে চুরি ঠেকাতে হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শককে প্রধান করে বিজিএমইএ, বিভিন্ন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির প্রতিনিধি সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এসএইচ-২৬/২০/২১ (আঞ্চলিক ডেস্ক)

Exit mobile version