প্রতিটি দাড়িতে কি সত্তরজন ফেরেশতা থাকে?

প্রকাশিতঃ জানুয়ারী ৬, ২০১৯ আপডেটঃ ৫:৫৫ অপরাহ্ন

দাড়ি রাখা ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা। দাড়ি মুসলিমের পরিচয় চিহ্ন হিসেবে গণ্য। দাড়ি লম্বা করা এবং গোঁফ খাটো করা শরিয়তের নির্দেশ। এ বিধান পূর্বেকার সকল নবীর শরিয়তে ছিল। দাড়ি লম্বা রাখা ওয়াজিব এবং এক মুষ্ঠি থেকে খাটো করা উচিত নয়।

কিন্তু একটি দাড়িতে সত্তরজন ফেরেশতা থাকে। একটি দাড়ি ঝরে গেলে বা ছিঁড়ে গেলে বলা হয়, সত্তরজন ফেরেশতা চলে গেল। ধারণা করা হয়, একটি দাড়ির সাথে যেহেতু সত্তরজন ফেরেশতা থাকে সুতরাং একটি দাড়ি পৃথক হওয়ার অর্থ সত্তরজন ফেরেশতা চলে যাওয়া। এটি একেবারেই অমূলক একটি ধারণা। যার কোনো ভিত্তি নেই।

তাছাড়া আরেকটি ভিত্তিহীন কথা প্রসিদ্ধ আছে, প্রতিটি ভাতের দানা বানাতে সত্তরজন ফেরেশতা লাগে। খাদ্য পড়ে গেলে তুলে খেতে হয়, এটা নবীজির সুন্নাত।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম খাদ্য পড়ে গেলে তুলে খেতে বলেছেন। এমনকি খাদ্যে ময়লা লেগে গেলে তা পরিষ্কার করে খেতে বলেছেন। নিজেও এর ওপর আমল করা উচিত এবং অন্যকেও উৎসাহ দেওয়া উচিত। কিন্তু প্রতিটি ভাতের দানা বানাতে সত্তরজন ফেরেশতা লাগে। একথার কোনো ভিত্তি নেই।

একটি ভাত বা চাল তৈরি হতে ফেরেশতা লাগে না লাগে না তা একমাত্র আল্লাহই জানেন। এটি অদৃশ্য জগতের বিষয়। তবে একটি ভাতের দানা আমার পর্যন্ত আসতে যে অনেক মানুষের শ্রম আছে এবং মাটি, পানি, চন্দ্র-সূর্য ইত্যাদিকে আল্লাহ তাআলা এ উদ্দেশ্যে ও এমন অনেক উদ্দেশ্যে আমাদের খেদমতে নিয়োজিত করেছেন তা কারই অজানা নয়। সুতরাং একটি ভাতের দানা হোক বা যে কোনো খাদ্যদ্রব্য হোক, নষ্ট বা অপচয় করার কোনো অবকাশ নেই। এর জন্য আল্লাহর কাছে হিসাব দিতে হবে।

আরএম-৪২/০৬/০১ (ধর্ম ডেস্ক)