রাষ্ট্রীয়ভাবে যে সব দেশে বোরকা নিষিদ্ধ

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারী ২২, ২০১৮ আপডেটঃ ৭:৩৫ অপরাহ্ন

বিভিন্ন দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে বোরকা পরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ তালিকার মধ্যে প্রথমে রয়েছে ফ্রান্স। ফ্রান্স ইউরোপের প্রথম দেশ, যেখানে বোরকা আইন করে নিষিদ্ধ করা হয়। সেখানে ৫০ লাখ মুসলমানের বাস করে। ২০১১ সালের ১১ এপ্রিল এই আইন কার্যকর হয় বোরকা বা নেকাব পড়লে জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে আইনে।

দ্বিতীয়তে রয়েছে বেলজিয়াম। ২০১১ সালের জুলাইয়ে বেলজিয়ামেও নেকাব নিষিদ্ধ হয়। কোনো নারী তার পুরো মুখ কাপড়ে ঢেকে রাখতে পারবে না। স্পেনও রয়েছে এ কাতারে। তবে সব শহরে নয় শুধু বার্সেলোনা শহর কর্তৃপক্ষ সেখানে বোরকা নিষিদ্ধ করেছে।

আরও খবর : বাংলাদেশ ২৩০০ সালের আগেই ডুবে যাবে!

জার্মানি রক্ষণশীল রাজনীতিকদের মধ্যে বোরকা নিষিদ্ধ করার দাবি উঠেছে। সিডিইউ দলের একাধিক রাজনীতিক স্কুল, সরকারি অফিস, আদালতকক্ষ ও গাড়ি চালানোর সময় বোরকা ও গোটা মুখ ঢাকা নিকাব পরা নিষিদ্ধ করতে চান সাম্প্রতিক এক জরিপে দেখা গেছে, প্রায় তিন-চতুর্থাংশ জার্মানও প্রকাশ্যে বোরকাধারী মহিলাদের দেখতে নারাজ। এমনকি সম্প্রতি চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলও পুরো মুখ ঢাকা নিকাব নিষিদ্ধ করার পক্ষ তাঁর সায় দিয়েছেন।

২০১৫ সালে নেদারল্যান্ডসে আইন করে বোরকা নিষিদ্ধ করা হয় বিশেষ করে জনসমক্ষে, অর্থাৎ স্কুল, হাসপাতাল ইত্যাদির মতো জায়গায বোরকা ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

তবে ব্রিটেনে প্রচুর মুসলিমের বাস করে এজন্য সেখানে কোনো ইসলামি পোশাকের ওপর নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে স্কুলগুলোতে নির্দিষ্ট পোশাক পরতে হয়। ২০০৭ সালে বেশ কয়েকটি মামলার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ ঠিক করে, স্কুলে কেউ বোরকা বা নেকাব পরতে পারবে না।

২০১৩ সালে সুইজারল্যান্ডের ইটালীয় ভাষাভাষীদের এলাকা টিসিনোতে বোরকা নিষিদ্ধের ওপর ভোট হয় নিষিদ্ধ করার পক্ষে পড়ে ৬৫ শতাংশ ভোট। এরপর ২৬টি শহরে বোরকা নিষিদ্ধ হয় চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে লুগানো, লোকারনো, মাগাদিনোসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় বোরকা নিষিদ্ধ হয় কেউ জনসমক্ষে বোরকা পড়লে ৯ হাজার ২০০ ইউরো পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে তাঁর

ইটালির বেশ কয়েকটি শহরে নেকাব নিষিদ্ধ উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর নোভারা কর্তৃপক্ষ সেখানে আইন করে বোরকা নিষিদ্ধ করেছে ৭০-এর দশকেই মুখ ঢেকে রাখা সব ধরনের ইসলামিক পোশাকের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে ইটালি

অস্ট্রিয়ার ক্ষমতাসীন জোট সরকার প্রকাশ্য স্থানে পুরো মুখ ঢাকা নিকাব নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে একমত হয়েছে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালতে নিকাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে একমত হয়েছে সরকারের শরিক দলগুলোও এছাড়া যাঁরা সরকারি চাকরি করেন, তাঁদের মাথায় স্কার্ফ, হিজাব কিংবা অন্যান্য ধর্মীয় প্রতীক পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথাও বিবেচনা করছে সরকার।

এসএইচ-২৮/২২/০২ (অনলাইন ডেস্ক, তথ্যসূত্র: ডয়েচে ভেলে)