প্রথম ধাপে ৭৮ উপজেলায় নির্বাচন রোববার

প্রকাশিতঃ মার্চ ৯, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:৪৯ অপরাহ্ন

১০ মার্চ রোববার দেশের চার বিভাগের ১২ জেলার ৭৮ উপজেলা পরিষদে নির্বাচন হচ্ছে কাল। এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত কোনো ধরনের বিরতি ছাড়া ভোটগ্রহণ হবে। নির্বাচন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এরই মধ্যে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে শেষ হয়েছে সব ধরনের নির্বাচনি প্রচারণা। এবারের উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তিনটি পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হচ্ছে।

এদিকে, নির্বাচনি এলাকায় যানবাহন চলাচলেও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। সে সঙ্গে নির্বাচনের দুইদিন আগে, নির্বাচনের দিন এবং নির্বাচনের পরের দিন মোট পাঁচদিন অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। পঞ্চম উপজেলা পরিষদের প্রথম ধাপের নির্বাচন উপলক্ষে অত্যন্ত কঠোর অবস্থান নিয়েছে ইসি। নির্বাচনের দিন প্রতিটি সাধারণ কেন্দ্রে ১৪ জন এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৬ জন করে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে এরইমধ্যে কমিশন থেকে বেশ কিছু দৃশ্যমান পদক্ষেপ নিয়েছে ইসি।

এ ব্যাপারে, ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, উপজেলা নির্বাচনে কোনো রকম অনিয়ম সহ্য করা হবে না। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে কমিশন থেকে সব ধরনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

প্রথম ধাপের ৮৭টি উপজেলা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হলেও নির্বাচন হচ্ছে ৭৮ টি উপজেলায়। এর মধ্যে তিন উপজেলায় স্থানীয় এমপিরা নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করার অভিযোগে শুক্রবার ইসি তিন উপজেলায় নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন। উপজেলা তিনটি হলো, লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী, নেত্রকোণা জেলার পূর্বধলা ও সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলা। অন্যদিকে, জামালপুর জেলার মেলান্দহ ও মাদারগঞ্জ ও নাটোর জেলার নাটোর সদর উপজেলায় সব প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় এই তিন উপজেলা নির্বাচন হচ্ছে না। আর রাজশাহী জেলার পবা উপজেলা, কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি ও সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া নির্বাচন আদালত কর্তৃক স্থগিত করা হয়েছে।

নয় সংসদ সদস্যকে নির্বাচনি এলাকা ছাড়ার নির্দেশ: উপজেলা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন ও প্রভাব খাটানোর অভিযোগে নয় জন সংসদ সদস্যকে সংসদীয় এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে ইসি। এরা হলেন, নাটোর-৪ আসনের সাংসদ আওয়ামী লীগের আব্দুল কুদ্দুস, নেত্রকোণা-৫ আসনের সাংসদ ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল, রাজশাহী-১ আসনের সাংসদ ওমর ফারুক চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-২ আসনের জয়া সেন গুপ্তা, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের এম এ মতিন, হবিগঞ্জ-৩ আসনের মো. আবু জাহির, কুড়িগ্রাম-১ আসনের আছলাম হোসেন সওদাগর, সুনামগঞ্জ-১ আসনের মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও লালমনিরহাট-১ আসনের মোতাহার হোসেন।

উপজেলা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন ও প্রভাব খাটানোর অভিযোগে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার ওসি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ইসি। এছাড়াও উপজেলা নির্বাচনে পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার করার অভিযোগে সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর এপিএসের বিরুদ্ধে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

প্রথম ধাপের নির্বাচনে এরই মধ্যে ১৬ জন চেয়ারম্যানসহ মোট ২৯ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৬ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ জন প্রার্থী রয়েছেন।

এছাড়াও প্রথম ধাপের তিনটি উপজেলায় সব প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় সেখানে কোনো নির্বাচন হচ্ছে না। উপজেলা তিনটি হলো, জামালপুর জেলার মেলান্দহ ও মাদারগঞ্জ ও নাটোর জেলার নাটের সদর।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি প্রথম পর্যায়ের উপজেলা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, গত ১১ ফেব্রুয়ারি ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন, গত ১২ ফেব্রুয়ারি ছিল মনোনয়নপত্র যাচাই এবং ১৯ ফেব্রুয়ারি ছিল প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। আগামীকাল ১০ মার্চ প্রথম পর্যায়ে চার বিভাগের ১২ জেলার ৮০ উপজেলায় ভোট হবে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এসব উপজেলায় প্রথম ধাপে মোট প্রার্থী ৮৯৪ জন প্রার্থী রয়েছেন। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২৭৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪০৬ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৭৩ জন। এসব উপজেলায় মোট ভোটার ১ কোটি ৫২ লাখ ৭০ হাজার ৫ জন। কেন্দ্র সংখ্যা ৬ হাজার ২১৯ টি এবং ভোট কক্ষের সংখ্যা ৩৯ হাজার ১৫৯ টি।

রংপুর বিভাগের ২৪ উপজেলায় নির্বাচন:

রংপুর বিভাগের পঞ্চগড় সদর উপজেলা, আটোয়ারী, বোদা, দেবীগঞ্জ ও তেঁতুলিয়া উপজেলা । নীলফামারি জেলার নীলফামারি সদর, ডোমার, ডিমলা, জলঢাকা, সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ উপজেলা । লালমনিরহাট জেলার লালমনিরহাচ সদর, পাটগ্রাম, হাতীবান্ধা, কালীগঞ্জ উপজেলা। কুড়িগ্রাম জেলার কুড়িগ্রাম সদর, ভুরুঙ্গামারী, ফুলবাড়ী, উলিপুর, নাগেশ্বরী, রাজারহাট, রাজিবপুর, চিলমারী ও রৌমারী উপজেলা।

ময়মনসিংহ বিভাগের ১৩ উপজেলায় নির্বাচন:

জামালপুর জেলার জামালপুর সদর, সরিষাবাড়ী, ইসলামপুর, বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা।নেত্রকোনা জেলার নেত্রকোণা সদর, বারহাট্টা, দূর্গাপুর, খালিয়াজুরী, মোহনগঞ্জ, কেন্দুয়া, কলমাকান্দা, মদন উপজেলা।

সিলেট বিভাগের ১৮ উপজেলায় নির্বাচন:

সুনামগঞ্জ জেলার সুনামগঞ্জ সদর, ছাতক, দোয়ারাবাজার, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, দিরাই, জামালগঞ্জ, শাল্লা, ধর্মপাশা, বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুর উপজেলা । হরিগঞ্জ জেলার হবিগঞ্জ সদর, বাহুবল, মাধবপুর, চুনারুঘাট, লাখাই, নবীগঞ্জ, আজমিরীগঞ্জ ও বানিয়াচং উপজেলা ।

রাজশাহী বিভাগের ২৬ উপজেলায় নির্বাচন:

সিরাজগঞ্জ জেলার সিরাজগঞ্জ সদর, বেলকুচি, চৌহালী, কাজীপুর, রায়গঞ্জ, শাহজাদপুর, তাড়াশ ও উল্লাপাড়া উপজেলা। জয়পুরহাট জেলার জয়পুরহাট সদর, পাঁচবিবি, আক্কেলপুর, কালাই ও ক্ষেতলাল উপজেলা । নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া, গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম, লালপুর ও সিংড়া । রাজশাহী জেলার তানোর, গোদাগাড়ী, মোহনপুর, বাগমারা, পুঠিয়া, দূর্গাপুর, চারঘাট ও বাঘা উপজেলা।

এসএইচ-০৫/০৯/১৯ (অনলাইন ডেস্ক)