এশিয়া কাপে থাকছেন না সাকিব!

প্রকাশিতঃ আগস্ট ৯, ২০১৮ আপডেটঃ ১১:১৪ অপরাহ্ন

সারা বাংলাদেশে চাউর হয়ে গেছে সাকিব আল হাসানের বাঁ-হাতের কনিষ্ঠা আঙ্গুলে অস্ত্রোপচার করা লাগবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আমেরিকা থেকে দেশে ফিরে আজ বিমান বন্দরে পা রেখে সাকিব আল হাসানও নিজের আঙ্গুলে সার্জারি করানোর কথা বলেছেন। একই সঙ্গে আকারে ইঙ্গিতে এটাও বলে দিয়েছেন, তিনি চান কোরবানির ঈদের পরপরই অস্ত্রপ্রচার করাতে।

এতে করে এশিয়া কাপ খেলা হবে না তার। কোরবানির পর অস্ত্রোপচার করালে শুধু এশিয়া কাপটাই মিস হবে। জিম্বাবুয়ে আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজে ঠিকই খেলতে পারবেন।

আগামী সেপ্টেম্বরে আরব আমিরাতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এশিয়া কাপের পর থেকে দারুন ব্যস্ত সূচি বাংলাদেশের। প্রায় টানা খেলা। অক্টোবরে জিম্বাবুয়ে সফরে আসবে। নভেম্বর-ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে দেশের মাটিতে সিরিজ। এরপর ২০১৯ সালের একদম শুরু, মানে জানুয়ারিতে বিপিএল।

ফেব্রুয়ারি-মার্চে নিউজিল্যান্ড সফর। এরপর ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। এমন টানা খেলা ও সূচির মধ্যে পরে অস্ত্রোপচার করা কঠিন। অনেক ভেবে-চিন্তে সাকিব চাচ্ছেন এশিয়া কাপ বাদ দিয়ে হলেও ওই সময় সার্জারিটা করানোর। তাতে দেড় থেকে দু’মাসের মধ্যে সুস্থ হয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে মাঠে ফেরার চিন্তা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের।

তবে সেটা আলোচনা সাপেক্ষে এবং সবার সাথে কথা বলে চূড়ান্ত করার কথাও বলেছেন সাকিব আল হাসান। দু’দিন আগে বিসিবি প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরীর মুখেও ছিল একই কথা। সবাই বসে ঠিক করতে হবে, কখন অপারেশন করলে ভাল হয়?

কিন্তু এদিকে সাকিবের চিন্তার সাথে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ভাবনায় খানিক পার্থক্য। বিসিবি প্রধান চান, সাকিব এশিয়া কাপ খেলুক। এশিয়া কাপ মহাদেশীয় ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর। সেখানে পূর্ণ শক্তির দল চান নাজমুল হাসান পাপন। সাকিবের সার্ভিসটাও ওই টুর্নামেন্টে জরুরি বলে মনে করছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে হোটেল র‌্যাডিসন ব্লুতে উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপে অনেক কথার ভীড়ে সাকিবের আঙ্গুলে অস্ত্রোপচার করা নিয়ে কথা বলেন পাপন। ওই সময় তিনি বলেন, ‘সাকিব আমাকে ফোন করেছিল। বলেছিল যে হাতে অস্ত্রোপচার করাতে হবে। হেড কোচও ওখান থেকে ফোন করেছিল। কারণ হাতে যে স্ট্রেংথ ওর দরকার, সেটা পাচ্ছে না ব্যাটিংয়ে।

ইনজেকশন নিয়ে নিয়ে খেলছে; কিন্তু অপারেশন হলে অন্তত ছয় সপ্তাহের বিরতি দরকার। এত লম্বা বিরতি পাওয়াটা কঠিন। প্রথম চেষ্টা করা হচ্ছে, যদি কোনো খেলার মাঝখানে ওকে বিরতিটা দেওয়া যায়। আর তা না হল একটা খেলাই বাদ দিতে হবে। যেটা ওকে ছাড়া আমরা চিন্তাই করতে পারছি না।’

তাহলে কখন হবে অস্ত্রোচপার? এশিয়া কাপের আগে না পরে? পাপনের জবাব, ‘এশিয়া কাপের আগেও হতে পারে, আবার পরেও হতে পারে। মানে জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময়ও হতে পারে। আজকে কোচের সঙ্গে যে কথা হয়েছে। সেও বলেছে এশিয়া কাপের কথাই।

আমি বলেছি, এশিয়া কাপের চেয়ে ভালো হয় আমরা জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময় করি। নতুন কিছু ক্রিকেটারও দেখতে পারব আমরা। ওটাতে আমার মনে হয় ভালো হবে। এশিয়া কাপ এমনিতেই এবার কঠিন হবে। তার ওপর সাকিবের মতো একজন ক্রিকেটার না খেললে দলের মোরাল আরও উইক হয়ে যেতে পারে। তারপরও আরও কথা হবে। আজ-কালের মধ্যে সাকিবের সঙ্গে কথা বলব। আমার মনে হয়, এশিয়া কাপের আগে না করে অন্য সময় করাটাই ভালো হবে।’

এসএইচ-২৪/০৯/০৮ (স্পোর্টস ডেস্ক)