হ্যাটট্রিকে সবাইকে ছাড়িয়ে রোনালদো

রেকর্ডের ‘বরপুত্র’ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। একের পর এক রেকর্ড গড়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। আগেই সর্বাধিক ম্যাচ ও গোলসংখ্যায় সবাইকে টপকে যাওয়ার পর এবার হ্যাটট্রিকেও নতুন ইতিহাস গড়লেন তিনি।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে মঙ্গলবার রাতে লুক্সেমবার্গকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে পর্তুগাল। ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এই হ্যাটট্রিকে আন্তর্জাতিক ফুটবলে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ১০ হ্যাটট্রিকের রেকর্ড গড়লেন পর্তুগিজ এই রাজপুত্র।

এদিন ম্যাচের শুরুতেই দলকে এগিয়ে দেন সিআরসেভেন। রোনালদোর তিন গোল ছাড়াও একটি করে গোল পেয়েছেন ব্রুন ফের্নান্দেস এবং পালহিনহা।

আন্তর্জাতিক ফুটবলে সব মিলিয়ে এখন ১৮২ ম্যাচ খেলে রোনালদোর গোলসংখ্যা ১১৫। এর আগে মাত্র কদিন আগেই জাতীয় দলের জার্সিতে ইউরোপীয় দেশগুলোর ফুটবলারদের বিচারে সব থেকে বেশি ম্যাচ খেলে টপকে যান স্পেনের সার্জিও রামোসকে।

সম্প্রতি ইরানের আলি দায়িকে টপকে দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করার নজিরও বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের নামের পাশে।

নিজ মাঠে লুক্সেমবার্গকে কোনো রকম পাত্তাই দেয়নি পর্তুগাল। ম্যাচের প্রথম থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে ফের্নান্দো সান্তোসের দল। যার ফলও পেয়ে যায় খুব তাড়াতাড়ি। ম্যাচের ৮ মিনিটেই দলকে এগিয়ে দেন ক্রিস্টিয়ান রোনালদো। তার পাঁচ মিনিট পরই দল এবং নিজের দ্বিতীয় গোল করেন সিআরসেভেন।

১৭তম মিনিটে সিলভার থ্রু বল ধরে নিচু শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ফের্নান্দেস। ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় পর্তুগাল। এরপর বেশকিছু গোলের সুযোগ নষ্ট করে পর্তুগাল। আর ৩-০ ব্যবধানেই প্রথমার্ধ শেষে বিরতিতে যায় দুই দল।

বিরতি থেকে ফিরেই আবারও জোড় আক্রমণ করা শুরু পরে পর্তুগাল। ৬২তম মিনিটে নুনো মেন্দেসের চমৎকার ক্রসে দূরের পোস্টে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ফের্নান্দেস। ছয় মিনিট পর পেনাল্টি স্পটের কাছ থেকে রোনালদোর দুর্দান্ত বাইসাইকেল কিক কোনোমতে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান মরিস। ফের্নান্দেসের সেই কর্নার থেকেই চমৎকার হেডে জাল খুঁজে নেন জোয়াও পালিনিয়া।

৮৭তম মিনিটে রোনালদোকে আর ঠেকিয়ে রাখা যায়নি তার হ্যাটট্রিক থেকে। রুবেন নেভেসের দুর্দান্ত ক্রসে ছুটে গিয়ে চমৎকার হেডে জাল খুঁজে নেন পর্তুগাল অধিনায়ক। দেশের হয়ে তার দশম হ্যাটট্রিক। সেই সাথে দল পায় ৫-০ গোলের বড় স্কোরলাইন।

এই জয়ে ইউরোপীয় অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ‘এ’ গ্রুপে ৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে রয়েছে পর্তুগাল। এক ম্যাচ বেশি খেলে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে সার্বিয়া।

এসএইচ-০৮/১৩/২১ (স্পোর্টস ডেস্ক)

Exit mobile version