ঠাকুরগাঁওয়ে গ্রামবাসী-বিজিবি সংঘর্ষে নিহত ৩

প্রকাশিতঃ ফেব্রুয়ারী ১২, ২০১৯ আপডেটঃ ৬:২৪ অপরাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর সীমান্তে গ্রামবাসী-বিজিবির সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো ১৭ জন।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বহরমপুর সীমান্তবর্তী এলাকায় এ সংঘর্ষ হয়। নিহতরা হলেন-সাদেক, নবাব ও জয়নুল। বিজিবি বলছে নিহতরা সবাই চোরাকারবারী।

তবে, গ্রামবাসীরা জানায়, নিহতদের মধ্যে নবাব ও জয়নুল ছাত্র। নবাব অনার্সে পড়েন, আর জয়নুল দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। অপরজন সাদেক স্থানীয় কৃষক।

আহত ১৭ জনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজিবি সূত্র জানিয়েছে, বহরমপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে দিয়ে গরু চোরাকারবারীরা ভারত থেকে গরু আনে। ওই গরু উদ্ধারে বিজিবি সদস্যরা অভিযানে যায়। এসময় চোরাকারবারীরা বিজিবির ওপর অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি সদস্যরাও গুলি চালালে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান বলেছেন, বিজিবির সদস্যরা চোরাই গরু উদ্ধার করতে গেলে চোরকারবারীরা বাধা দেয়। এসময় আশপাশের লোকজনও তাদের সঙ্গে যোগ দিয়ে বিজিবি সদস্যদের ঘেরাও করে রাখে। পরে বিজিবি সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। এতে এক পথচারীসহ তিনজন নিহত হন।

গ্রামবাসীরা জানান, বিজিবির সদস্যরা কৃষকের বাড়ি থেকে গরু নিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় স্থানীয়রা এতে বাধা দেয়। পরে বিজিবি গুলি ছুড়লে গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে দুই ছাত্রসহ তিনজন নিহত হন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থল গেলে জেলা প্রশাসক কামরুজ্জামানকে অবরুদ্ধ করে রাখে গ্রামবাসী।

তবে, ঘটনা সম্পর্কে জানতে বিজিবির কোনো সদস্যের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এসএইচ-২০/১২/১৯ (উত্তরাঞ্চল ডেস্ক)